৬৮৪ কোটি টাকা পাচারের সাথে যুক্ত থাকার গুরুতর অভিযোগ তৃণমূল নেতা কে ডি সিং এর বিরুদ্ধে। আদালতে তথ্য পেশ করবে সেবি।

সামনে লোকসভা সেই লক্ষ্যে নির্বাচনে লড়াইয়ের প্রস্তুতি চলছে চরমে। আর এর মধ্যে পাঞ্জাবের তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা ও রাজ্যসভা সাংসদের নেতা কে ডি সিং এর সমস্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। এবার সেবি সংস্থা আদালতে বিস্ফোরক হয়ে উঠলেন কে ডি সিংহ এর বিরুদ্ধে। এই সংস্থাটি দাবি করেন যে মুম্বইয়ের এক প্রভাবশালী ব্যবসায়ী পরিবারের ছত্রছায়াতে থেকে কে ডি সিংহ চিটফান্ডের নামে টাকা তোলা শুরু করে।

সেই টাকার পরিমান ৬৮৪ কোটি টাকা। পরে সেই সমস্ত টাকা পাচার করে দেন তিনি। তিনি যেই সমস্ত ব্যাবসায়ীর ছত্রছায়াতে থেকে এই সমস্ত কাজ করেন তাদের পরিচয় আন্তর্জাতিক স্তরেও রয়েছে বলে জানা যায়। এমন কি তিনি সাইপ্রাসের সংস্থা কেনার জন্য চুক্তি করে ফেলেছেন গ্রিসের এক ব্যাবসায়ীর সাথে। তিনি ইউরোপে বাড়ি কেনার তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছেন তাই মুম্বাই এর এক ব্যাবসায়ীর মাধ্যমে তিনি ইউরোপ যাওয়ার জন্য পাসপোর্ট তৈরি করে ফেলেন।

এমনকি মিকোনোজ দীপ যেটা গ্রিসে অবস্থিত সেখানেও তিনি ৪০ কোটি টাকার সম্পত্তি কিনে ফেলেছেন ইতিমধ্যে। এছাড়াও তার কলকাতাতে রয়েছে ২৫০ কোটি টাকার সম্পত্তি। আদালতে সেবি সংস্থা তার বিরুদ্ধে সমস্ত তথ্য পেশ করেছেন একটি বন্ধ খামে ভরে। হাইকোর্টে সমস্তকিছু দেখার পর সেবির ডাকে সাড়া দিয়েছেন।

একদিকে যখন তৃণমূল কংগ্রেসের সমর্থকরা মমতাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাইছে তখন তার দলের সাংসদের উপর এমন গুরুতর অভিযোগ যে তৃণমূলের ছবি খারাপ করবে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

#অগ্নিপুত্র

Related Post

Open

Close