Press "Enter" to skip to content

অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপালেন দিলীপ ঘোষ, ‘কন্নাশ্রী” নিয়ে দিলেন অকাট্য যুক্তি


কলকাতাঃবাংলায় নারী নির্যাতনের প্রতিবাদ করতে গিয়ে হাসির পাত্র হয়ে উঠেছিলেন । কারণ সংসদের সামনে ধরনা দেওয়ার সময় উনি যে প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন, তাতে বড়সড় বানান ভুল ছিল। ওনার ওই প্ল্যাকার্ডে ‘কন্যাশ্রী”র বদলে ‘কন্নাশ্রী” লেখা ছিল। যার জেরে বঙ্গ বিজেপির সভাপতি ঘরে-বাইরে দুই জায়গাতেই সমালোচিত হয়েছেন। দিলীপ ঘোষের এই কাণ্ডের জেরে কংগ্রেসের নেতা কৌস্তভ বাগচী ওনাকে একটি বর্ণ পরিচয় বই পাঠিয়ে দিয়ে শোরগোল ফেলে দেন।

অন্যদিকে ত্রিপুরার প্রাক্তন তথা নেতা তথাগত রায়ও দিলীপ ঘোষকে ঘুরিয়ে কটাক্ষ করে ‘মূর্খ” বলে সম্বোধন করেছেন। তবে এতেও কিছু যায় আসে না বারবার বিতর্কিত মন্তব্য করা দিলীপ ঘোষের। এখন তিনি নিজের দোষ ঢাকতে পাল্টা যুক্তিও দিচ্ছেন। দিলীপবাবু বলেছেন, ‘অনুবাদ করতে গেলে একটু এমন হবেই।” ওনার এই মন্তব্য শুনে এটা স্পষ্ট যে, তিনি কোনমতেই নিজের দোষ স্বীকার করছেন না।

শুক্রবার প্রাতঃভ্রমণের সময় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন দিলীপ ঘোষ। সেখানে তাঁকে যখন জিজ্ঞাসা করা হয় যে, সংসদের বাইরে রাজ্যের নারী নির্যাতনের প্রতিবাদ জানানোর সময় ওনার হাতে থাকা প্ল্যাকার্ডে বানান ভুল ছিল কেন? তখন দিলীপবাবু পাল্টা যুক্তি দিয়ে বলেন, ‘অনুবাদ করতে গেলে এমন হয়ে যায় একটু। দিল্লীতে তো আর নেই। সেখানে হিন্দি থেকে অনুবাদ করা হয়।”

এখন প্রশ্ন হচ্ছে যে, হিন্দি থেকে বাংলা অনুবাদ করার সময় না হয় ভুল হয়েছিল, কিন্তু দিলীপবাবু কী সেই ভুলটা নিজের চোখে দেখতে পারেন নি? ওনাকে যখন প্রশ্ন করা হয় যে, দিল্লীতে কেন অনুবাদ করতে যাওয়া হল? তখন দিলীপবাবু বলেন, ‘আমরা অনেককে খবর ছাপানর সুযোগ দিয়েছি।” দিলীপবাবু এও বলেছেন যে, ‘আমি নৌকায় করে ত্রাণ বিলি করতে গেলে যা ছবি আসে, তাঁর থেকে অনেক বেশি ছবি আসে মুখ্যমন্ত্রী রাস্তায় দাঁড়িয়ে বন্যা পরিদর্শনে গেলে। এটাই নিয়ম। যারা মতবাদ দিয়েছেন, তাঁদেরকে ধন্যবাদ।”