Press "Enter" to skip to content

অবসর নিয়েও ২.৫ লক্ষ টাকা বেতনের চাকরি পেলেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, আমরা কবে চাকরি পাবো- প্রশ্ন টেট প্রার্থীদের


আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যসচিব পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন। তবে স্বেচ্ছায় ইস্তফা নিলেও কেন্দ্র তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেবে বলে সূত্রের খবর। অন্যদিকে মমতা ব্যানার্জী বলেন, আমি এমন নির্দয় নির্মম প্রধানমন্ত্রী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দেখিনি। মমতা ব্যানার্জী ঘোষণা করেন, এখন থেকে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ্য উপদেষ্টা হিসেবে নিযুক্ত করা হলো। উনাকে মাসিক আড়া লক্ষ টাকা বেতন দেওয়া হবে বলেও জানা মমতা ব্যানার্জী।

২.৫০ লক্ষ টাকা বেতনের পাশাপাশি অন্যান্য সুযোগ সুবিধাও পাবেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে জনসাধারণের ট্যাক্সের টাকায় কি কারণে একজন স্বেচ্ছায় অবসর গ্রহণ নেওয়া অফিসারকে চাকরি দিল রাজ্য, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। অন্যদিকে টেট পরীক্ষা দিয়ে মাসের পর মাস বসে থাকা বেকার যুবতীরাও মমতার ব্যানার্জীর সিদ্ধান্তের উপর অসন্তোষ প্ৰকাশ করেছেন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশকিছু টেট প্রার্থী সরকারের বিরুদ্ধে তাদের ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। শুভঙ্কর নামের একজন লিখেছেন, “মেয়াদ শেষ হবার পর উচ্চপদে চাকরি হয়ে যায়।আমরা বছরের পর বছর সেই অধরাই রয়ে যায়। আর নয় গর্জে ওঠো।” টুকাই দাস লিখেছেন, “অবসরের পরেও আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ২.৫ লক্ষ টাকা বেতনের চাকরি দেওয়া হলো। আর বাংলার ছেলে মেয়েরা চাকরির অভাবে বয়স শেষ হয়ে অবসর নিচ্ছে।”

মমতা ব্যানার্জীর সরকারকে কটাক্ষ করে সূচরিতা রায় লিখেছেন, “কথা রাখলেন ডবল ডবল চাকরি!
অর্থাৎ আলাপন বাবুকে অবসরের পর আবার চাকরি।উনাকে দিয়ে শুরু করা হলো।”

সব মিলিয়ে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে আবার চাকরি দেওয়ার বিষয়টি যে অনেকেই ভালো চোখে দেখছেন না তা একেবারে স্পষ্ট।