Press "Enter" to skip to content

অভিনন্দনকে ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার সত্যতা উজাগর করা নেতাকে দেশদ্রোহী বানানোর প্রস্তুতি নিল ইমরান সরকার


নয়া দিল্লীঃ ভারতীয় এয়ারফোর্সের (Indian Air force) অফিসার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমানের () ভারতে () ফিরে আসার সত্যি ঘটনা উজাগর করা পাকিস্তানি () নেতা আয়াজ সাদিকের () পিছনে এবার উঠেপড়ে লেগেছে ইমরান খান () সরকার। পাকিস্তানের ন্যাশানাল অ্যাসেম্বলির প্রাক্তন স্পিকার আয়াজ সাদিকের বিরুদ্ধে ইমরান সরকার এবার দেশদ্রোহ-এর মামলা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এর আগে ইমরান সরকারের তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রী ফরাজ বলেছিলেন যে, আয়াজ সাদিকের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে। এবার পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী এজাজ শাহ শনিবার বলেন যে, সরকারের কাছে অনেকে আবেদন করে বলছে যে, আয়াজ সাদিকের বিরুদ্ধে সংবিধানের ধারা-৬ অনুযায়ী মামলা চালানো হোক। জানিয়ে দিই, পাকিস্তানে ধারা-৬ এ দেশদ্রোহকে পরিভাষিত করা হয়েছে।

ননকানা সাহিবে একটি র‍্যালিতে ভাষণ দেওয়ার সময় এজাজ শাহ বলেন, আমাদের কাছে যেই আবেদন গুলো জমা পড়েছে সেগুলো নিয়ে চর্চা হচ্ছে।

জানিয়ে দিই, পাকিস্তানের সংসদে আয়াজ সাদিকের দেওয়া একটি বয়ান ভাইরাল হয়েছিল। সেই বয়ানে পিএমএল এন নেতা আয়াজ সাদিক বলেন, ‘অভিনন্দনের কথা বলি, আমার মনে আছি শাহ মেহমুদ কুরেশি ওই মিটিংয়ে ছিলেন যেখানে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান আসবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন। চিফ আওয়ামী সাহেব মিটিংয়ে এসেছিলেন, ওনার পা কাঁপছিল, কপাল দিয়ে ঘাম ঝড়ছিল। তখন কুরেশি বলেন, অভিনন্দনকে যেটা দাও। নাহলে রাত ৯ টায় ভারত পাকিস্তানের উপর হামলা করে দেবে।”

আয়াজ সাদিকের এই বয়ানে পাকিস্তানে তুমুল হাঙ্গামার সৃষ্টি হয়। আয়াজ সাদিক এই বয়ান পাকিস্তানের সংসদে দিয়েছিলেন, আর এই কারণে এই বয়ান বেশ গুরুত্বপূর্ণ বলেই ধরে নেওয়া হয়েছে। এরপর পাকিস্তানের তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রী ফরাজ বলেন, আয়াজ সাদিক ক্ষমার যোগ্য নন। তিনি বলেন, দেশকে কমজোর করা বয়ান অপরাধ যোগ্য আর এই কারণে ওনাকে সাজা দেওয়া হবে।