Press "Enter" to skip to content

অভিষেকের গড়ে আক্রান্ত মহিলা সিভিক ভলান্টিয়ার, অভিযুক্ত মুজাহিদ ও ইনজামামুল গ্রেফতার


 কর্তব্যরত সিভিক ভলান্টিয়ারকে হুমকি দিতে দেখা গেল দুই মুসলিম যুবককে। সেই হুমকি দেওয়ার অভিযোগের ভিত্তিতে ওই দুই যুবককে করেছে ডায়মন্ড হারবার পুলিশ। পুলিশের তরফে অভিযোগ, ওই মহিলা সিভিক পুলিশকে হেনস্থা করেছেন যুবকদ্বয়। গ্রেফতারির আগে তাদেরকে রাস্তায় সবার সামনে কান ধরে ওঠবস করানো হয়।

সোমবার একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখতে পাওয়া গিয়েছে , ডায়মন্ড হারবার এলাকায় ১১৭ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর কর্তব্যরত মহিলা সিভিক ভলান্টিয়ারকে অশালীন ভাষায় হুমকি দিচ্ছে দুই মুসলিম । ওই ভিডিও নজরে আসতেই নড়েচড়ে বসেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে অভিযুক্তদের খোঁজ করতে শুরু করেন ডায়মন্ড হারবারের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক (এসডিপিও) মিতুনকুমার দে।

শেষ পর্যন্ত ভিডিওর ওই যযুবকদের দেখামেলে এবং তাদের গ্রেফতার করা হয়। তবে গ্রেফতারির আগে চুলের মুঠি ধরে রাস্তায় নিয়ে আসা হয় বলে পাল্টা অভিযোগ ওই দুই যুবকের। রাস্তার উপরেই কান ধরে ওঠবস করানো হয় দুজনকে। পুলিশের বিরুদ্ধে ধৃতদের লাথি মারার অভিযোগ তুলেছে ওই দুজন। পরে ওই দুজনকে ডায়মন্ড হারবার থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

পুলিশ সূত্রে প্রাপ্ত খবর, ধৃতদের নাম মুজাহিদ লস্কর এবং ইনজামামুল হক মোল্লা। স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন, স্টেশন বাজারের কাছে ১১৭ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর প্রতিদিন যানজট হয়। সেই যানজট সামলানোর জন্য ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি সিভিক ভলান্টিয়াররাও থাকেন।

পুলিশের তরফে দাবি, সোমবার দিন সকালে ট্রাফিক নিয়ম ভঙ্গ করে রাস্তার উপর গাড়ি নিয়ে দাঁড় করিয়েছিল স্থানীয় দুই ইনজামামুল এবং মুজাহিদ। কর্তব্যরত সিভিক ভলান্টিয়াররা তাদের সরে যেতে বললে বচসা শুরু হয়। অভিযোগ করা হয়েছে, বচসা চলাকালীন এক মহিলা সিভিক ভলান্টিয়ারকে হেনস্থা করেন ওই দুই যুবক। এমনকি, ওই মহিলা ভলান্টিয়ারকে মারতেও উদ্যত হয় ওই দুজন মুসলিম যুবক।

মুসলিম ছেলে দুটির হুমকি দেওয়ার সেই ভিডিও ইতিমধ্যে ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে ওই দুই যুবককে গ্রেফতার করেন ডায়মন্ড হারবারের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক। এসডিপিও জানান, কর্তব্যরত মহিলা সিভিক ভলান্টিয়ারকে বাজেভাবে হেনস্থা করেছিল ওই দুই যুবক। তাদেরকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে।