Press "Enter" to skip to content

অসমে নারী সুরক্ষায় লাগু হবে ‘লাভ জিহাদ” আইন, প্রতারণা করলে হিন্দুরাও পার পাবে নাঃ হিমন্ত বিশ্ব শর্মা

গুয়াহাটিঃ‘লাভ ’ (love ), সাম্প্রতিক ঘটনাক্রমের মধ্যে এই শব্দটি শুনলেই মনে পড়ে যায় উত্তর প্রদেশ কিম্বা কাশ্মীরের কথা। বর্তমানে অনেক ক্ষেত্রেই ‘লাভ জিহাদ’ কথার অর্থ হল ালম্বী কোন মেয়েকে প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে তাকে ধর্মান্তরিত করা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অভিযোগটা গিয়ে পড়ে মুসলিম ধর্মালম্বী কোন ছেলের উপর। বিবাহের স্বপ্ন দেখিয়ে প্রথমে তার সঙ্গে ভালোবাসার অভিনয় এবং পরে ধর্মান্তরিতকরণ করা। উত্তরপ্রদেশে ইতিমধ্যে এ ধরনের বেশ কিছু ঘটনা সামনে এসেছে।

যদিও তার অনেকগুলি সাজানো ঘটনা বলেও পরিগণিত হয়েছে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে এ ধরনের ঘটনা যে বাস্তব অস্বীকার করা যায় না। এবার আসামে একই ধরনের বিল আনতে চলেছে হিমন্ত সরকারও। নিজের সরকারের দু মাস পূর্তিতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা (Himanta Bishwa Sharma)। সেই সাংবাদিক বৈঠকেই এ ধরনের বিলের কথা উল্লেখ করেন তিনি। তবে আসামে যে আইনের কথা বলা হয়েছে তা অনেকটাই উদারনৈতিক।

হিমন্ত বিশ্ব শর্মা স্পষ্টতই জানিয়েছেন, কোন ছেলের ক্ষেত্রে হিন্দু মেয়ের সাথে বৈবাহিক প্রতারণাও লাভ জিহাদের অংশ। তিনি বলেন, “লাভ জিহাদ মানে শুধু এটাই নয় যে কোনও হিন্দুর সঙ্গে প্রতারণা করছেন কোনও মুসলিম। এটা হিন্দুদের মধ্যেও হতে পারে। যদি কোনও হিন্দু ছেলে কোনও হিন্দু মেয়েকে ফাঁসিয়ে বিয়ে করেন, তাও একধরনের লাভ জিহাদ।”

হিমন্ত এও বলেন, লাভ জিহাদ এই শব্দ বন্ধনী তিনি পছন্দ করেন না। কিন্তু তিনি এও জানান কোন হিন্দু সম্প্রদায়ের ছেলেরও উচিত নয় হিন্দু মেয়েদের সাথে বৈবাহিক প্রতারণা করা। সেক্ষেত্রে তাদের শাস্তি হওয়া প্রয়োজন। তার স্পষ্ট বক্তব্য আসামে যে আইন প্রণীত হবে,তা শুধুমাত্র মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য প্রণীত হবে না। ‘নারীর ক্ষমতায়নের’ জন্য এই আইন তৈরির পক্ষে কথা বলবেন তিনি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য লাভ জিহাদের জন্য ইতিমধ্যেই যথেষ্ট কটাক্ষ সহ্য করতে হয়েছে বিভিন্ন রাজ্যের সরকারকে। এই আইনকে মুসলিম বিরোধী আইন বলেও কটাক্ষ করেছেন অনেকেই। কিন্তু আসামে হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বুঝিয়ে দিলেন, তিনি যে লাভ জিহাদের কথা বলছেন তা মূলত মেয়েদের আরও ক্ষমতায়নে সাহায্য করবে। প্রতারণা থেকে বাঁচতে সাহায্য করবে।