Press "Enter" to skip to content

অ্যাডভান্স লাইট হেলিকপ্টারের ৩০০ তম সংস্করণের মাধ্যমে নতুন ইতিহাস গড়ল HAL

নয়া দিল্লীঃ হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস লিমিটেড () মঙ্গলবার ৩০০ তম অ্যাডভান্স লাইট হেলিকপ্টারের () সাথে নতুন একটি কীর্তিমান স্থাপন করল। HAL এর সিএমডি আর মাধবন জানান, ৩০ আগস্ট ১৯৯২ এ প্রোটোটাইপের প্রথম আকাশে উড়ে যাওয়ার পর থেকে HAL ধ্রুব আর পিছনে তাকিয়ে দেখেনি। এত বছরের সার্ভিসে ধ্রুব বিশ্বস্তরের হেলিকপ্টার প্রমাণিত হয়েছে। HAL জানিয়েছেন, ‘ HAL মার্ক -১ থেকে মার্ক – ৪ পর্যন্ত প্রতিটি হেলিকপ্টারের উন্নয়ন অসাধারণ ছিল। আর এই হেলিকপ্টার গুলো স্বদেশী ডিজাইন তথা উন্নয়নের এক জলজ্যান্ত দৃষ্টান্ত।”

HAL এর হেলিকপ্টার বিভাগে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে অ্যারোনটিকাল কোয়ালিটি আশ্বাসের অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক ওয়াইকে শর্মা ৩০০ তম ধ্রুব হেলিকপ্টার সম্পর্কিত শংসাপত্র হেলিকপ্টার কমপ্লেক্সের সিইও জিভিএস ভাস্করকে হস্তান্তর করেন। ভাস্কর বলেন, ‘২,৮০,০০০ ঘণ্টা আকাশে ওড়ার সাথে সাথে HAL যেকোনও অভিযান, যেকোনও স্থান আর যেকোনও সময়ের জন্য একটি বহুমুখী হেলিকপ্টার প্রমাণিত হয়েছে।”

বর্তমানে HAL এর কাছে ৭৩ টি হেলিকপ্টার বানানোর অর্ডার আছে। যারমধ্যে ৪১ টি স্থল সেনার জন্য, ১৬ টি উপকূল রক্ষীদের জন্য আর ১৬ টি নৌসেনার জন্য। HAL জানিয়েছে যে, মোট ৭৩ টির মধ্যে ৩৮ টি হেলিকপ্টারের নির্মাণ হয়ে গিয়েছে। আর বাকি গুলো ২০২২ এর মধ্যে সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।

জানিয়ে দিই, এই হেলিকপ্টার গুলোর মাধ্যমে হাতিয়ার এবং নানান সৈন্য সামগ্রী অধিক উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া হয়। এরকম উচ্চতায় অন্যান্য হেলিকপ্টার গুলোর আকাশে উড়তে সমস্যার সন্মুখিন হতে হয়। শীত মৌসুমে যখন লাদাখের তাপমাত্রা শূন্য ডিগ্রির নিচে চলে যায়, তখন এই হেলিকপ্টারটি পে-লোড বহনে কার্যকর হিসাবে প্রমাণিত হয়।