Press "Enter" to skip to content

আতঙ্কে ছড়াতে বাচ্চাদের খুন করছে তালিবান, ছবি শেয়ার করে দাবি প্রাক্তন আফগান মন্ত্রীর


নয়া দিল্লিঃ আফগানিস্তানে তালিবানের আতঙ্ক জারি রয়েছে। গত এক সপ্তাহে হাজার হাজার মানুষ প্রাণ ভয়ে আফগানিস্তান ছেড়ে পালিয়েছেন। আর এবার সেই পলায়ন রুখতে তালিবানিরা কাবুল এয়ারপোর্টে আসা-যাওয়ার রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে। সমস্ত রাস্তায় নাকা চেকিংয়ের মতো পোস্ট খুলে রেখেছে তালিবরা। কোনও আফগান নাগরিককেই বিমানবন্দরে যেতে দেওয়া হচ্ছে না।

তালিবানের মুখপাত্র জবিউল্লাহ মুজাহিদ একটি প্রেস কনফারেন্সে জানিয়েছিল যে, কাবুল এয়ারপোর্ট যাওয়ার সমস্ত রাস্তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আফগান নাগরিকরা এখন আর এয়ারপোর্টে যেতে পারবে না। শুধুমাত্র বিদেশি নাগরিকদের জন্যই এয়ারপোর্টের রাস্তা খুলে দেওয়া হবে।

আর এরই মধ্যে রাষ্ট্র আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে ্তা জাহির করেছে। রাষ্ট্র সঙ্ঘ হুঁশিয়ারির সুরে বলেছে, তালিবান আগে থেকেই আফগানিস্তানে মানবাধিকার লঙ্ঘন করে আসছে। নির্দোষ নাগরিদকের হত্যা করা হচ্ছে। বাচ্চাদের জঙ্গি সংগঠনে ভর্তি করানো হচ্ছে। এছাড়াও তাঁরা মহিলা আর বাচ্চাদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

তালিবানি শাসনে গোটা আফগানিস্তানে আতঙ্কের মহল সৃষ্টি হয়েছে। তালিবানিদের বিরুদ্ধে বাচ্চাদের হত্যা করারও অভি উঠেছে। আফগানিস্তানের প্রাক্তন মন্ত্রী তালিবানদের বিরুদ্ধে বাচ্চাদের হত্যা করার অভিযোগ তুলেছেন। উনি নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে কয়েকটি ছবি শেয়ার করেছেন। প্রাক্তন মন্ত্রী মনসুর আন্দ্রাবি দাবি করেছেন যে, তালিা এখন নিরীহ শিশুদেরও ছাড়ছে না। তাঁদের ভয় দেখাচ্ছে। কারণ ওঁরা নিষ্ঠুরতার সঙ্গেই ক্ষমতা দখলে বিশ্বাস রাখে।

বলে দিই, মার্চ ২০২১-এ মনসুর আন্দ্রাবিকে বরখাস্ত করেছিল আশরফ গনি সরকার। সেই প্রাক্তন মন্ত্রী নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে কয়েকটি ছোট বাচ্চার ছবি শেয়ার করে চারিদিকে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে দিয়েছেন। তাঁর দাবি অনুযায়ী, এই বাচ্চাগুলিকে তালিবানরা হত্যা করেছে। মনসুর জানান, তালিবানরা ক্ষমতা দখলের পর থেকেই ছোট বাচ্চা আর বয়স্কদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ানোর জন্য তাঁদের উপর চরম অত্যাচার চালাচ্ছে।