Press "Enter" to skip to content

আত্মসমর্পণ করেছিল পুলিশ অফিসার, তবুও মানল না তালিবান! গুলিতে ঝাঁঝরা করল দেহ


নয়া দিল্লিঃ আফগানিস্তানে কবজা করার পর তালিবানের নৃশংসতা বেড়েই চলেছে। একদিকে যেমন নিরীহ আফগানিদের সঙ্গে বর্বরতা করছে জঙ্গিরা। তেমন অন্যদিকে এখন আত্মসমর্পণ করা পুলিশ কর্মীকেও ছাড়ছে না তাঁরা। সম্প্রতি এই ঘটনা ঘটেছে বদঘিস প্রান্তে। সেখানকার এক পুলিশ কর্মী হাজি মুল্লাকে প্রকাশ্যে গুলি করে হত্যা করে তালিবানিরা। এখানেই শেষ না। পুলিশ কর্মীর মৃত্যুর পর তাঁর মরদেহর উপরেও গুলি চালাতে থাকে তাঁরা। উল্লেখ্য, ওই পুলিশ কর্মী কদিন আগেই তালিবানের সামনে আত্মসমর্পণ করেছিল।

তালিবানের জঙ্গি মুখাপাত্ররা বয়ান জারি করে বলেছে যে, তাঁরা সবাইকে নিরাপত্তা দেবে। দেশের মানুষের ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। এমনকি তাঁরা প্রাক্তন সরকারি আধিকারিকদের নির্ভয়ে কাজে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। একদিকে যখন গোটা বিশ্বের সামনে তাঁরা নিজেদের নিরীহ দিকটা ফুটিয়ে তুলতে চাইছে, তখন অন্যদিকে তাঁরাই আবার নৃশংস অত্যাচার চালাচ্ছে দেশের মানুষদের উপর।

প্রাক্তন পুলিশ প্রধান হাজি মুল্লার নৃশংস হত্যাকাণ্ডের একটি সামনে এসেছে। ভিডিওতে তালিবানিরা হাজি মুল্লাকে হাত পা বেঁধে একটি জায়গায় বসিয়ে রাখতে দেখা যাচ্ছে। এরপর তালিবানিরা নিজেদের মধ্যে কিছু বলাবলি করে পুলিশ কর্মীর উপর গুলি চালানো শুরু করে দেয়। পুলিশ কর্মীর মৃত্যুর পরেও তাঁরা মরদেহর উপর গুলি চালায়।

https://platform.twitter.com/widgets.js

এর আগে তালিবানের চারজন কম্যান্ডারকে একটি স্টেডিয়ামে অজস্র মানুষের সামনে হত্যা করে। বুধবার সেই ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছিল। সূত্র অনুযায়ী, ওই চারজন কম্যান্ডার গত ১৩ আগস্ট তালিবানিদের সামনে আত্মসমর্পণ করেছিল।