Press "Enter" to skip to content

আত্মসমর্পণ না করলে পঞ্জশিরে আক্রমণের হুমকি তালিবানের, পাল্টা দিলেন মাসুদ


নয়া  ওয়াটারলুর কথা মনে আছে নিশ্চয়ই, শক্তিশালী নেপোলিয়ান তলোয়ারের দম্ভে সকলকে দমিয়ে দিতে পারলেও জয় করতে পারেননি ওয়াটারলু। কার্যত তালিবানদের কাছেও এখন ওয়াটারলু হয়ে উঠেছে পঞ্জশির একদিকে যখন গোটা আফগানিস্তান দখল করে সরকার গঠনের স্বপ্ন দেখছে , তখনই তাদের কাছে অজেয় হয়ে রয়েছে পঞ্জশির। উত্তরে হিন্দুকুশ পর্বতের পাদদেশে পঞ্জশির উপত্যকায় তালিবানদের প্রতি উত্তর দিয়েছে আহমেদ মাসুদের বাহিনী।

আহমেদ শাহ মাসুদের ছেলে আহমেদ মাসুদ। তার কাছে এসেই বিরাট ধাক্কা খেয়েছে তালিবান। আফগান সেনার একাংশ এখন দিয়েছে মাসুদ বাহিনীতে। সঙ্গে রয়েছেন গনি সরকারের ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লা সা। এবার এই প্রতিরোধকেও ধ্বংস করতে তৎপর হয়ে উঠল তালিবান। কার্যত আত্মসমর্পণের জন্য চার ঘণ্টার সময় দেওয়া হলো মাসুদ বাহিনীকে। নাহলে পঞ্জশির আক্রমণ করবে তালিবান তাও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে স্পষ্ট।

যার জেরে পরিস্থিতি এখন রীতিমতো উত্তাল। তালিবান এখন শুধুমাত্র কোন গোষ্ঠী নয়, তাদের হাতে রয়েছে অত্যাধুনিক আমেরিকার । আফগানিস্তানকে প্রায় ৬ লক্ষ রাইফেল-বন্দুক জাতীয় লাইট ওয়েপন, ৮০ হাজারের বেশি মাইন নিরোধক অত্যাধুনিক গাড়ি, যে কোনও রাস্তায় চলতে পারে এমন ৪ হাজার ৭০০ টি হামভি, ২০ হাজারেরও বেশি গ্রেনেড দিয়ে যুদ্ধ সাজে সাজিয়ে দিয়েছিল আমেরিকা। সেই বিরাট অস্ত্রভান্ডারের অনেকটাই দখল করেছে তালিবান। যার জেরে তারা এখন আগের থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী।

অন্যদিকে অবশ্য মাসুদ বাহিনীর আত্মসমর্পণের প্রস্তুত নয়। তারা স্পষ্ট জানিয়েছে অস্ত্র তাদেরও রয়েছে। লড়াইয়ের জন্য কার্যত প্রস্তুত তারা। কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, এই প্রতিরোধ হয়ে উঠতে চলেছে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। অজেয় পঞ্জশির এখন কতদিন অজেয় থাকে সেদিকেই তাকিয়ে থাকবেন সকলে। কারণ গোটা আফগানিস্তানে যখন একে একে নিভিছে দেউটি তখন আমরুল্লা সালেহ এবং মাসুদ বাহিনীই জ্বালিয়ে রেখেছেন যুদ্ধের মশাল।