Press "Enter" to skip to content

আদালতে দুঃখ প্রকাশ করে আজম খান বললেন, ‘পুলিশ আমাকে খেতেও দেয়না, বাথরুমে যেতেও দেয়না!”

লখনউঃ ের (Uttar Pradesh) রামপুর থেকে সমাজবাদী পার্টির (Samajwadi Party) (Azam Khan) অভিযোগ করে বলেছেন যে, পুলিশ তাঁর সাথে দুর্ব্যবহার করছে। সীতাপুর থেকে রামপুর নিয়ে যাওয়ার ছয় ঘণ্টার সফরে পুলিশ তাঁকে টয়লেটে যাওয়ারও অনুমতি দেয়নি। আদালতের নির্দেশের পরেও পুলিশ ওনাকে রাস্তায় লাঞ্চ পর্যন্ত করায়নি। উনি বলেন, আমি নয় বারের বিধায়ক আর চার বারের মন্ত্রী একবার রাজ্যসভার সাংসদ আর বর্তমানে লোকসভার সদস্য। আর এরপরেও পুলিশ আমার সাথে এমন ব্যবহার করছে।

বৃহস্পতিবার আদালতের সমক্ষে হাজিরা দিতে উনি একা গেছিলেন। ওনার স্ত্রী আর ওনার পুত্র এদিন আদালতে হাজিরা দিতে আসেন নি। পুলিশ ওনাকে সীতাপুর থেকে রামপুরে একাই নিয়ে গেছিল। আদালতে হাজিরা দেওয়ার পর আজম খান আদালতে জানান যে, তিনি কিছু বলতে চান। এরপর উনি নিজের দুঃখ প্রকাশ করেন। আজম খান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্কুল খোলা পর্যন্ত সমস্ত কথা বলেন আদালতে সামনে। উনি বলেন, আমি কোন দোষ করিনি, আমি শুধু মানুষের সাহায্য করেছি।

উনি এও বলেন যে, আমি আইনজীবী, আমি দেড় বছর রামপুর আদালতে প্র্যাকটিস করেছি। আদালতের কাছে উনি পুলিশের ব্যবহার নিয়ে অবগত করান। উনি বলেন, সীতাপুর থেকে রামপুরের ছয় ঘণ্টার সফরের মধ্যে পুলিশ আমাকে বাথরুমে পর্যন্ত যেতে দেয়নি আর লাঞ্চও করায়নি।

আগামী তিনদিন পর্যন্ত বেি জেল আজম খানের নতুন ঠিকানা হতে চলেছে। বৃহস্পতিবার রামপুর কোর্টে হাজিরা দেওয়ার পর ওনাকে বেরেলি জেলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। আধিকারিকরা জানান, ডিআইজি জেলের আদেশের পর আজম খানকে সাত মার্চ সকাল পর্যন্ত বেরেলির জেলে রাখা হবে। আরেকদিকে, আজম খানের বিরুদ্ধে দায়ের মামলার হাজিরা কনফারেন্স এর মাধ্যমে করানো হবে। প্রয়োজন হলেই ওনাকে আদালতে আনা হবে। এই বিষয়ে এডিজি ধিরেন্দ্র কুমারের আদালত আদেশ জারি করেছে।