আবার দেশভাগের হুমকি দিলেন কট্টরপন্থী নেতা মুজফফর হুসেইন বৈগ ।

কিছুদিন আগেই ভারতকেও বিভক্ত করার হুমকি দিয়েছিলেন জম্মুকাশ্মীরের মুসলিম ধর্মগুরু তথা গ্রান্ড মুফতি, যা নিয়ে সারা দেশে হৈচৈ শুরু হয়েছিল। জম্মুকাশ্মীরের গ্রান্ড মুফতি নাসির উল ইসলামের বক্তব্য ছিল যদি সরকার দেশে শরিয়া আদালত তৈরি করতে না দেয় তাহলে মুসলিমদের উচিত ভারতকে ভেঙে নতুন দেশের দাবি তোলা। সেই বিতর্কের জের কাটতে না কাটতেই আবার এক কট্টরপন্থীর দেশভাগের হুমকি দেশবাসীকে চিন্তায় ফেললো। আসলে মুজফফর হুসেইন বৈগ নামে এক নেতা জম্মু কাশ্মীরের পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (PDP)-র সাথে বহু দিন ধরে যুক্ত। তিনি এখন সেই পার্টির একজন নাম করা নেতাও ।

মুজফফর হুসেইন বৈগ এক সভায় মুসলিম সম্প্রদায়কে উস্কানি দেওয়ার জন্য বলেন যে “দেশ কে আবার ভাগ করে দিতে হবে, যদি এই ভাবে মুসলিম হত্যা বন্ধ না করা হয়।” তিনি এই দিন জম্মু কাশ্মীরের শ্রীনগর এলাকাভুক্ত একটি জায়গায় জনসভা করে, সেখানে তিনি নিজের বক্তৃতায় বলেন যে, যদি গো-হত্যার নামে মুসলিম দের যেভাবে হত্যা করা হচ্ছে সেটা যদি অতিসত্বর বন্ধ না করা হয় তাহলে দেশের সরকারকে এর খেসারত দিতে হবে।

সেই সঙে তিনি ১৯৪৭ সালে দেশ ভাগের কথা মনে করিয়ে দেন। সেই বয়ান যখন তিনি দিচ্ছিলেন তখন মঞ্চে উপস্থিত ছিল প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। পিডিপির নেত্রী মেহবুবা মুফতির সামনেই বিতর্কিত বক্তব্য রাখেন।

উনি বলেন যে এর আগে ১৯৪৭ সালে ভারতবর্ষ দুভাগ হয়েছিল। সেই রকমই দেশকে আবার ভাগ করে দেওয়া হবে যদি মুসলিমদের উপর হামলা বন্ধ না হয়। গোরক্ষার নাম করে যে গণপিটুনির ঘটনা ঘটছে তার বিরোধীতা করতে গিয়ে তিনি এই বিতর্কিত বক্তব্য রেখেছেন।
#অগ্নিপুত্র

you're currently offline

Open

Close