Press "Enter" to skip to content

আমফান থেকে শিক্ষা! এবার ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতি এড়াতে তৃণমূলকে দূরে সরালেন মুখ্যমন্ত্রী


কলকাতাঃ আমফানের মতো আর যাতে দুর্নীতি না হয়, সেই কারণে এবার ইয়াসে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার পদ্ধতিতে বদল আনল মমতা সরকার ( )। ইয়াসের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য প্রথম থেকেই নতুন পদ্ধতিতে কাজ করতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ইতিমধ্যে দুয়ারে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে এবার ত্রাণ বিলি আর পুনর্বাসনের কাজে () কাউকে রাখা হবে না। গোটা প্রক্রিয়াটাই প্রশাসনের মাধ্যমে হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনের মাধ্যমে ত্রাণ বিলি হলে সরকারি হিসেব থাকবে আর কেউ দুর্নীতির অভিযোগও করতে পারবে না।

গত বছর আমফান ের পর ত্রাণ বিলি নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতির আভাস পাওয়া গিয়েছিল রাজ্যে। সমেত সমস্ত বিরোধী দলগুলোই সেই দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হয়েছিল। অনেক জায়গায় দেখা গিয়েছিল যে, ঝড়ে যাদের ঘর ভেঙেছিল তাঁরা আর্থিক সাহায্য না পেয়ে পাকা বাড়ির মালিকরা আর্থিক সাহায্য পেয়েছিল। আর যারা আর্থিক সাহায্য পেয়েছিল তাঁরা হয় তৃণমূলের নেতা-কর্মী, নাহলে শাসক দল ঘনিষ্ঠ। সেবার রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে দেখা গিয়েছিল ক্ষতিগ্রস্তদের। যদিও, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন যে ত্রাণ বিলি অথবা আর্থিক সহায়তা নিয়ে কোনও দুর্নীতি হয়নি।

তবে এবার বিপর্যয়ের পর ত্রাণ বিলি নিয়ে ভিন্ন পথে হাঁটছে রাজ্য। মুখ্যমন্ত্রী প্রথমেই বলে দিয়েছিলেন যে, ‘এবার আর কারও কথায় ত্রাণ বিলি হবে না। আগেরবার বহু মানুষকে টাকা দিয়েছি আমরা, কিন্তু দু’একটা মামলার জন্য আমাদের অনেক শুনতে হয়েছে।” আর এই জন্যই এবার তিনি ত্রাণ বিলির কাজ সরাসরি সরকারি মাধ্যমে করার কথা জানিয়েছেন।

প্রশাসনিক ভাবে ত্রাণ বিলি নিয়ে তৃণমূলের মুখপাত্র সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, ‘প্রশাসনের মধ্যমে ত্রাণ বিলি বলে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের অভিযোগ তোলার কোনও প্রশ্নই থাকবে না। রাজনীতির রঙ না দেখে সবাই উপকৃত হবেন।”