Press "Enter" to skip to content

আমরাই কমে দিচ্ছি, ভারত-বাংলাদেশে তো ১৫০-২০০ টাকা লিটার পেট্রোল! দাবি ইমরান খানের

[ad_1]

নয়া দিল্লিঃ পাকিস্তানে (Pakistan) পেট্রোল-ডিজেলের (Diesel Fuel) দাম আকাশ ছুঁতেই দেশে হাঙ্গামা শুরু হয়েছে। একদিকে সাধারণ নাগরিক চরম ক্ষোভে রয়েছে, অন্যদিকে বিরোধীরাও ইমরান খানকে (Imran Khan) নিশানা করা শুরু করে দিয়েছে। আর এরই মধ্যে ইমরান খান পাকিস্তানিদের শান্ত করাতে ভারতে (India) অনেক বেশি দামে পেট্রোল বিক্রি হচ্ছে বলে দাবি করে বসেন। তিনি ভারতের পেট্রোলের দাম বাড়িয়ে ১৫০ টাকা করে দেন। ইমরান খান নিজের দেশে পেট্রোলের দাম ১৪৬ টাকাকে সবথেকে কম বলেও দাবি করেছেন।

ইমরান খান বলেন, ‘আজ ভারতে অনেক বেশি দামে পেট্রোল বিক্রি হচ্ছে। ওই দেশে ১ লিটার তেলের দাম ১৫০ টাকা। আর বাংলাদেশে (Bangladesh) ২০০ টাকা লিটার পেট্রোল। কিন্তু আমাদের দেশেই সবথেকে কমে বিক্রি হচ্ছে পেট্রোল। এখনও পর্যন্ত পাকিস্তানে ১৪৬ টাকা লিটার পেট্রোল।” ইমরান খান বলেন, আমদানিকারক দেশে একমাত্র পাকিস্তানেই সবথেকে কমে পেট্রোল-ডিজেল পাওয়া যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ভারতের বেশীরভাগ রাজ্যেই পেট্রোলের দাম ১০০ টাকা নীচে চলে গিয়েছে। দু’দিন আগেই কেন্দ্র পেট্রোল ডিজেলে শুল্ক কমায়, তাঁর জেরে পেট্রোলে ৫ টাকা আর ডিজেলে ১০ টাকা প্রতি লিটার দাম কমে যায়। এরপর বহু রাজ্য ৫ থেকে ১২ টাকা পর্যন্ত পেট্রোল-ডিজেলের দাম কমানোয় তা ১০০ টাকার নীচে নেমে আসে। বর্তমানে ভারতে পেট্রোল ডিজেলের দাম কিছুটা কমলেও সাধারণ মানুষ সম্পূর্ণ স্বস্তিতে নেই।

তবে ইমরান খানের দেশ পাকিস্তানে শুধু পেট্রোল-ডিজেলই না, নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী এবং খাদ্যদ্রব্যেরও ব্যাপক মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে। আর তাঁর জেরেই ইমরান খান ১২০ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। ওই টাকা আটা, ঘি, ডালের দাম ৩০ শতাংশ পর্যন্ত কমানোর কাজে ব্যবহৃত হবে। এছাড়াও পাকিস্তানে বর্তমানে চিনির দামেও আগুন লেগেছে। ওই দেশে এখন ১৫০ টাকা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে চিনি।

[ad_2]