Press "Enter" to skip to content

আমরা তালিবানের সাথে সুসম্পর্ক গড়তে চাই, বললো চীন! জুলুমবাজি চলবে না- পাল্টা বার্তা আমেরিকার


UN সিকিউরিটি কাউন্সিল একটা এমারর্জেন্সি মিটিংয়ের আয়োজন করেছিল। ভারতের নেতৃত্ব UN কাউন্সিল মিটিং এর আয়োজন হয়েছিল। সেখানে বিভিন্ন দেশ সম্পর্কে নিজেদের মতামত পেশ করে। বেশকিছু দেশ তালিবানকে করতে রাজি হয়েছে। আবার কিছু দেশ আফগানিস্তানে তালিবানের শাসনের বিরোধিতা করেছে।

চীনের তরফে স্পষ্ট বলা হয়েছে, যে তারা তালিবানকে স্বীকার করতে রাজি। ভবিষ্যতে যাতে তালিবানের সাথে সুসম্পর্ক স্থাপন হয় সেদিকে দৃষ্টি ফেলার কথা বলে চীন। লক্ষণীয়, চীন তালিবানের সমর্থনে গিয়ে ভারতকে চাপে ফেলার চেষ্টায় নেমেছে। অন্যদিকে ইউনাইটেড কিংডম বলেছে যে তারা তালিবানদের এত তাড়াতাড়ি স্বীকার করতে পারবে না। তারা বেশকিছু বছর শাসনের কার্যকলাপ দেখার পর সিদ্ধান্ত নেবে। এই একই কথা রাশিয়ার মুখেও শোনা গেছে।

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি পদত্যাগ করার পর‌ই কাবুলে ক্ষমতা কায়েম করেছে তালিবান। এই অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে ভারত-আমেরিকা বার্তা দিয়েছে জুলুমবাজি করে তৈরি সরকারকে তারা মান্যতা ে না। আফগানিস্তানের রাষ্ট্রপতি , উপরাষ্ট্রপতি, রক্ষামন্ত্রী তথা সরকারের অন্যান্য মন্ত্রীরা দেশ ছেড়ে পলায়ন করেছে। আফগানিস্তানে কবজা করার পর তালিবান নিজের নিয়ম কানুন লাগু করার কাজ শুরু করে দিয়েছে।

তালিবান তৎকাল প্রভাব লাগু করে সমস্ত TV সিরিয়াল ব্যান করার আদেশ দিয়েছে। শুধু এই নয়, সরকারি থেকে মহিলাদের বহিষ্কার করার কাজ চলছে। এর পক্রিয়া শুক্রুবার কান্দাহার থেকে হয়েছে। তালিবানের আদেশের পর টোলো টিভিকে নিজেদের পুরো অনুষ্ঠানে কার্যপ্রণালী বদলাতে হয়েছে।