Press "Enter" to skip to content

আম্বানির কোটি কোটি টাকার ক্ষতি করিয়ে দিলেন রণবীর সিং, মাথায় হাত ব্যবসায়ীর

[ad_1]

মুম্বইঃ রিপোর্ট অনুযায়ী, রণবীর সিং অনিল আম্বানিকে পয়সা ডুবিয়ে দিয়েছেন। অনিল আম্বানি যেই টাকা রণবীর সিংয়ের ছবিতে খরচ করেছিলেন, এখন তার ফেরার আশা শেষ। রণবীর সিংয়ের ছবি ৮৩ এখন বক্স অফিসে পুরোপুরি মুখ থুবড়ে পড়েছে। অনিল আম্বানির রিলায়েন্স এন্টারটেইনমেন্ট এই ছবির জন্য ১২৫ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছিল এবং আশা করা হয়েছিল যে ছবিটি মুক্তির ৪ থেকে ৫ দিনের মধ্যে পুরো আয় তুলে নেবে এবং তারপরে একটি ভাল লাভ হবে।

কিন্তু তা হয়নি, বরং উল্টোটাই ঘটেছে। এই ছবিটি বক্স অফিসে বাজেভাবে মুখ থুবড়ে পড়েছে। যেখানে এই ছবিটি মুক্তির আগে শুধু নির্মাতাই নয়, সাধারণ দর্শকরাও মনে করেছিলেন এটি বক্স অফিসে ভালো পারফর্ম করবে। কিন্তু এ ছবিতে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় হয়েছে তা অর্জন করা সম্ভব হয়নি। বলে দিই, মুক্তির পর থেকে এখন পর্যন্ত এই ছবিটি মাত্র ৫৯ কোটির ব্যবসা করেছে।

আসলে, আশা করা হয়েছিল যে এই ছবিটি ২০২১ সালের সবচেয়ে ব্লকবাস্টার ছবি হবে। ছবিটি বেশ ভালো আয় করবে বলেও আশা করেছিলেন নির্মাতারা। কিন্তু আফসোস এত দাবি সত্ত্বেও সমস্ত আশা চুরমার হয়ে যায় এবং ছবিটি বক্স অফিসে পুরোপুরি মার খায়। ৮৩ ছবিটি ফ্লপ হওয়ায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে এই ছবির প্রধান অভিনেতা রণবীর সিংয়ের।

রিপোর্টে বলা হচ্ছে যে, যখন রণবীর সিং তার ফ্যান ফলোয়িংয়ের বিবেচনায় ডবল ফিগার চার্জ করেন, তখন এই সিনেমার জন্য রণবীর সিংয়ের পারিশ্রমিক কমানো হবে। এই ছবির নির্মাতাদের কাছ থেকে ২০ কোটি পারিশ্রমিক ছাড়াও রণবীর সিং এই ছবির লাভের অংশও চেয়েছিলেন। কিন্তু এই ছবিটি যেভাবে ফ্লপ হয়েছে তাতে পারিশ্রমিক পাওয়াও তাদের পক্ষে কঠিন হয়ে পড়েছে। ২৫০ কোটির বড় বাজেটে তৈরি এই ছবিটি এখন পর্যন্ত মাত্র ৫৯ কোটি টাকা আয় করতে পেরেছে।

রণবীর সিং এই ছবির জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছিলেন, রণবীর সিং এই ছবির শুটিং শুরু হওয়ার ১ বছর আগে থেকেই এই ছবির জন্য খুব কঠোর পরিশ্রম করছিলেন। শুধু তাই নয়, রণবীর সিং বিদেশেও এই ছবির প্রচার করেছিলেন এবং এই ছবির গ্র্যান্ড প্রিমিয়ারে বলিউডের বিখ্যাত গ্র্যামি তারকা থেকে শুরু করে বড় বড় ক্রিকেটাররাও উপস্থিত ছিলেন।

এই সব কিছু দেখে মনে হয়েছিল যে এই ছবিটি সত্যিই একটি বড় হিট হতে চলেছে। ছবিটি ফ্লপ হওয়ার পর অনেক প্রেক্ষাগৃহ তাদের প্রেক্ষাগৃহ থেকে ৮৩-র পোস্টারও সরিয়ে দিয়েছে। এছাড়াও অনেক প্রেক্ষাগৃহে এই ছবির পরিবর্তে পুষ্প ও স্পাইডারম্যানের মতো ছবি দেখানো হচ্ছে।

[ad_2]