Press "Enter" to skip to content

আরও একটি রেকর্ড, এবার এই ক্ষেত্রে বিশ্বগুরু হয়ে উঠে আসছে ভারত

[ad_1]

নয়া দিল্লিঃ ভারতে ডিজিটাল লেনদেন প্রতিদিনই নতুন রেকর্ড গড়ছে। এখন একটি নতুন কীর্তি স্থাপন করে ভারতে UPI-র অধীনে লেনদেন ২০২১ সালের ডিসেম্বরে ৪৫৬ কোটির রেকর্ড স্তরে পৌঁছে গিয়েছে, যা ২০২১ সালের অক্টোবরে ৪২১ কোটির রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। ২০২১ সালের ডিসেম্বরে লেনদেনের মোট পরিমাণ ৮.২৭ লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। উৎসবের মরসুমে কেনাকাটা এবং ই-কমার্স কোম্পানিগুলির অনলাইন বিক্রির কারণে অক্টোবরে UPI লেনদেন সমস্ত রেকর্ড ভেঙেছে। নভেম্বরে কিছুটা পতন হলেও ডিসেম্বরে তা বেড়ে ২০২১ সালের সমস্ত রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। বছরের শেষ দিন ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় ফুড অর্ডারিং অ্যাপে UPI-র মাধ্যমে রেকর্ড লেনদেন হয়েছে।

এটি ২০২১ সালের ডিসেম্বরে লেনদেনের সংখ্যার ৯% বৃদ্ধি ও মূল্য ৭.৬% চিহ্নিত করে৷ গত বছরের ডিসেম্বর ২০২০-র লেনদেনের তুলনায়, ২০২১ সালের ডিসেম্বরে UPI ব্যবহার দ্বিগুণ হয়েছে। UPI-র মাধ্যমে ২০২১ সালের অক্টোবরে রেকর্ড ৪.২১ বিলিয়ন লেনদেন করেছে ভারত, যার মূল্য ৭.৭১ ট্রিলিয়ন ভারতীয় মুদ্রা। এই প্রথম UPI লেনদেন এক মাসে ১০০ বিলিয়ন ডলারের সীমা অতিক্রম করেছে।

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২১ সালে ৩ হাজার ৮০০ কোটি UPI লেনদেন হয়েছে যার পরিমাণ ৭৩ লক্ষ কোটি টাকা। ন্যাশনাল পেমেন্টস কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া যারা UPI প্ল্যাটফর্ম পরিচালনা করে, তাঁরা আশা করেছে যে, এই পরিমাণ শীঘ্রই একদিনে এক বিলিয়ন পৌঁছবে। ইউপিআই লেনদেনগুলি ইতিমধ্যেই দেশে ইলেকট্রনিক পেমেন্টের প্রভাবশালী মাধ্যম হয়ে উঠেছিল এবং এখন কার্ড লেনদেনের সংখ্যার থেকেও প্রায় আট গুণ বেশি লেনদেন হচ্ছে৷

ক্রেডিট কার্ড যা শুধুমাত্র মার্চেন্ট অর্থপ্রদানের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে, UPI লেনদেন নম্বর পিয়ার টু পিয়ার (P2P) স্থানান্তরের পাশাপাশি মার্চেন্ট পেমেন্ট উভয়েই বৃদ্ধি দেখাচ্ছে। যেহেতু UPI হল একটি অ্যাকাউন্ট-টু-অ্যাকাউন্ট ট্রান্সফার মেকানিজম, তাই ব্যাঙ্কাররা বলছেন যে দৈনিক ভিত্তিতে এত বড় পরিমাণের লেনদেন পরিচালনা করার জন্য তাদের মূল ব্যাঙ্কিং সিস্টেমের পুনর্বিবেচনা করতে হবে।

এটি লক্ষণীয় বিষয় যে, 2016 সাল থেকে ভারতে UPI শুরু হয়েছিল, যা করোনার কারণে দ্রুত ভাবে বেড়ে চলেছে। এটি অক্টোবর ২০১৯-এ প্রথমবারের মতো ১ বিলিয়ন লেনদেন অতিক্রম করেছে। পরবর্তী ১ বিলিয়ন এক বছরের মধ্যেই হয়ে গিয়েছিল। ২০২২ সালের অক্টোবরে UPI-র মাধ্যমে প্রথমবারের মতো ২ বিলিয়নের বেশি লেনদেন হয়েছে। অপরদিকে, UPI মাত্র ১০ মাসে ২ বিলিয়ন লেনদেন থেকে ৩ বিলিয়নে পৌঁছেছে, যা গ্রাহকদের মধ্যে খুচরা ডিজিটাল পেমেন্টের প্ল্যাটফর্ম হিসাবে UPI-র অবিশ্বাস্য জনপ্রিয়তাকে প্রতিফলিত করে।

বলে রাখি, UPI লেনদেনে বিশ্বের মধ্যে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে চীন। তাঁদের প্রতিটি ক্ষেত্রেই UPI লেনদেনকে প্রোৎসাহিত করা হয়ে থাকে। এমতবয়স্থায়, ভারত UPI লেনদেনে দিনদিন নতুন সীমা অতিক্রম করছে। এতে একদিকে যেমন ফিসিক্যাল মানির ব্যবহার কমছে, তেমন অন্যদিকে সমস্ত কিছু ব্যাঙ্কের মাধ্যমে হওয়ায় সরকারের কাছে একটি নির্দিষ্ট নথিও থাকছে, যেটা দিয়ে আগামী দিনে কর ফাঁকি রোখার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা পালন করতে পারে। এছাড়াও এই করোনাকালে UPI লেনদেন সম্পূর্ণ ভাবে সুরক্ষিত বলে মানছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ, এতে কোনও ছোঁয়াছুঁয়ির বিষয় নেই। আর সেই কারণে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কাও কম।

[ad_2]