Press "Enter" to skip to content

আর দেওয়া যাবে না ভুয়ো ভোট, সংসদে নির্বাচনী সংশোধনী বিল পাশ করাল কেন্দ্র

[ad_1]

নয়া দিল্লিঃ আজ সোমবার লোকসভায় নির্বাচনী সংশোধনী বিল পেশ করে সরকার। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীমণ্ডল গত বুধবার এই বিলকে পেশ করার জন্য মঞ্জুরি দিয়েছিল। সেখানে বলা হয়েছিল যে, ভোটার লিস্ট স্বচ্ছ করতে আর ভুয়ো, ছাপ্পা ভোট রুখতে ভোটার কার্ডকে আধার কার্ডের সঙ্গে যুক্ত করা হবে।

বিরোধীদের হাঙ্গামার মধ্যেই লোকসভায় আজ নির্বাচনী সংশোধনী বিল পাশ হয়ে যায়। সবথেকে অবাক করা বিষয় হল, তৃণমূল এই বিলের সমর্থন করেছে। এই বিলের উদ্দেশ্য হল ভোটার তালিকায় নকল এবং জাল ভোট ঠেকাতে ভোটার কার্ড এবং তালিকাকে আধার কার্ডের সাথে লিঙ্ক করা। তবে, সবেমাত্র এই বিল লোকসভায় পাশ হয়েছে, এখনও রাজ্যসভায় পাশ হওয়া বাকি রয়েছে। রাজ্যসভায় পাশ হলেই ভুয়ো ভোটারদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার ছাড়পত্র পেয়ে যাবে কেন্দ্র।

এই বিষয়ে প্রাক্তন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার হরিশঙ্কর ব্রহ্মা বলেছেন, ভারতে বিপুল সংখ্যক জাল ভোটারের সমস্যা রয়েছে। ২০১২ সালে, আমি নিজে প্রস্তাব দিয়েছিলাম যে আমরা ভোটার আইডি কার্ডকে আধার কার্ডের সাথে লিঙ্ক করি যাতে ডুপ্লিকেট কার্ডগুলি সরানো যায়। অনেক এমন ভোটার রয়েছে, যাদের নাম একাধিক জায়গার ভোটার তালিকায় রয়েছে। আমি যেমন আসাম থেকে এসেছি, আমার দিল্লিতে কার্ড থাকতে পারে, আমার তেলেঙ্গানায় কার্ড থাকতে পারে (যেহেতু আমি অন্ধ্র ক্যাডারভুক্ত)। সেই কারণেই ভোটার আইডি কার্ডের ডেটাবেস ঠিক করার উদ্দেশ্যে আমি বলেছিলাম যে এটি আধার কার্ডের সাথে লিঙ্ক করা উচিত।”

প্রাক্তন নির্বাচন কমিশনার হরিশঙ্কর ব্রহ্মা আরও বলেছেন, এমন একটি ব্যবস্থা থাকা উচিৎ যেখানে কেউ যদি বসবাসের জন্য শহর পরিবর্তন করে, তাহলে সে সহজেই তার ভোটার আইডি কার্ড পরিবর্তন করতে পারে কারণ এটি আধারের সাথে সংযুক্ত থাকবে। তিনি বলেন, ‘মনে করুন আপনি দিল্লিতে আছেন এবং আগামীকাল আপনাকে বেঙ্গালুরুতে স্থানান্তরিত করা হয়েছে, তাহলে ভোটার আইডি কার্ড স্থানান্তর করতে আপনার সমস্যা হবে এবং এর জন্য আপনাকে আবার আবেদন করতে হবে। একজন ভোটারকে পরিচয়পত্র পেতে অনেক চেষ্টা করতে হয়।”

তিনি আরও বলেন, ১৩৫ কোটি ভারতীয়দের মধ্যে মাত্র ৬০ শতাংশ ভোটারই ভোটার আইডি সহ ভোটার। কিন্তু আধার ডাটাবেস বিশাল। তিনি বলেন, “আধার কার্ড সব বয়সের মানুষের জন্য প্রযোজ্য।”

[ad_2]