Press "Enter" to skip to content

আসিফাকে ন্যায় দেওয়ার নামে চলছে টাকা সংগ্রহ।টাকার ভাগ নিয়ে লড়াই বুদ্ধিজীবীদের মধ্যে।

কাঠুয়া ঘটনাকে কেন্দ্র করে অনেকে রাজনীতি ও ের খেলা শুরু করেছে।
এই ঘটনাটির উপর একটু ভালো করে নজর দিলে আপনারাও বিষয়টি পরিষ্কার বুঝতে পারবেন।

একটু খেয়াল করে দেখুন আপনারা নির্ভয়া কান্ডেও এইরকম দেশজুড়ে প্রতিবাদ উঠেছিল।
কিন্তু আজ পর্যন্ত আপনারা কি নির্ভয়ার আসল ছবি দেখেছেন? আপনারা কি নির্ভয়ার আসল নাম জানেন? নির্ভয়ার বাড়ির ঠিকানা জানেন?

নিশ্চয় জানেন না। কারণ কোনো মহিলার সাথে এই ধরণের ঘটনা ঘটলে তার পরিষ্কার ছবি দেখানো আইনত অপরাধ। এমনকি তার নামও লুকিয়ে রাখার আদেশ দেওয়া হয়। তাহলে এক্ষত্রে কেন আসিফার নাম, তার ধর্ম জানিয়ে দেওয়া হলো?আসলে একদল নোংরা সমাজ আসিফার মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করার জন্য নেমে পড়েছে।আর এই জন্যই বিষয়টিকে করা হয়েছে।

সম্প্রতি আসিফার ঘটনাকে কেন্দ্র করে আরো একটা গুরুতর বিষয় উঠে এসেছে । জানা গেছে এর কিছুজন আসিফাকে ন্যায় দেওয়াবার নামে টাকা উপার্জন করতে শুরু করেছে।
চাঁদার মাধমে টাকা নেওয়া হচ্ছে, এমনকি সেই টাকা নিয়ে নিজেদের মধ্যে লড়াইও শুরু করে দিয়েছে এরা।

আপনাদের জানিয়ে দি, আসিফার ঘটনাকে যারা এত বড়ো পর্যায়ে নিয়ে গেছে তাদের মধ্যে JNU এর এই ছাত্রছাত্রীরাও সামিল রয়েছে। তবে শুধু JNU নয়, দল ও বকেরওয়াল সমাজের নেতারাও অর্থ সংগ্রহের জন্য ক্যাম্পন চালিয়েছিও কিন্তু এখন সেই অর্থ নিয়ে নিজেদের মধ্যেই লড়াই শুরু হয়েছে।
আসিফারকে ন্যায় দেওয়ার নাম করে একটা ওয়েবসাইটও খোলা হয়েছে যেখানে প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা সংগ্রহ করেছে বুদ্ধিজীবীর দল কিন্তু
আপনারা জানলে অবাক হবেন, আসিফা যে পরিবারের কাছে থাকতো তাদের কাছে এখনো অবধি কোনো টাকা পৌঁছায়নি। আসলে এই বুদ্ধিজীবীদের উদেশ্য যে করেই হোক হিন্দু ধর্মকে আঘাত করা এবং ভারতবিরোধ কার্যকলাপ করা।
কাঠুয়া ঘটনার আসল সত্য..

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.