Press "Enter" to skip to content

ইন্ডিয়ান আর্মির মুড দেখে নীতি পাল্টে নিল তালিবান! বলল- ভারতের সাথে সুসম্পর্ক চাই


কাবুল: কাশ্মীরে নিরাপত্তা সংক্রান্ত বন্দোবস্তের কোনও ফাঁক ফোকর রাখা হয়নি, কাবুলে ের দখলে হ‌ওয়ার পরেও তাই আমাদের চিন্তার কারণ নেই। রবিবার এই আশ্বস্ত করেছেন সেনা। সেনার ১৫ কোরের জেনা কম্যান্ডিং অফিসার লেফটেন্যান্ট ডিপি পাণ্ডে রবিবার ে একটি অনুষ্ঠানে এমনটাই বলেছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগে অবশ্য তিন সেনার প্রধান জেনারেল বিপিন রাওয়াত আফগানিস্তান তালিবানের দখলে যাওয়ার পর বলেছিলেন, আফগানিস্তানের ব্যাপারে এটা সুনিশ্চিত করব যে, ওখানকার কোনও সমস্যার মোকাবিলা আমরা ঠিক সেই পদ্ধতিতে করব, যেভাবে সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে মোকাবিলা করা হয়।

  • তালিবানদের দখলে নিয়েছে আফগানিস্তান‌ যাওয়ার পর থেকেই তালিবান শাসন বিশ্বের দরবারে নতুন নতুন মন্তব্য ভেসে আসছে। পাল্লা দিয়ে ভারতের ওপর বাড়ছে চাপ। তালিবানদের নিয়ে চাপে ভারত, সরাসরি স্বীকার করেছেন দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। তিনি বলেছেন, তালিবানরা কাবুল দখলের পর থেকেই নীতি পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছে ভারত। তবে এর মধ্যেই ভারতের সঙ্গে নতুন সম্পর্কের সুর তুলেছে তালিবান শীর্ষ নেতারা।

ভারতের সঙ্গে তারা আগের মতোই সুসম্পর্ক চায়। কাতারে তালিবান নেতৃত্বের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য বলেছেন যে ভারত এই উপমহাদেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি জায়গা। তিনি আরও জানিয়েছেন, আফগানিস্তানের ‘সাংস্কৃতিক’, ‘অর্থনৈতিক’, ‘রাজনৈতিক’, ‘বাণিজ্যিক সম্পর্ক’ ভারতের সঙ্গে “অতীতের মতোই” বজায় রাখতে চায় তালিবানরা। দোহায় তালিবানের কার্যালয়ের ডেপুটি হেড শের মোহাম্ আব্বাস স্টেনকজাই একথা জানিয়েছেন।

তালিবানদের ব্যবসা বাণিজ্যের পরিকল্পনার বিষয়ে তিনি বলেছেন, ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। ভারতের সঙ্গে, এয়ার করিডরের সঙ্গেও বাণিজ্যও খোলা থাকবে। পাকিস্তান ভারত ও আফগানিস্তানের মধ্যে স্থলপথে ট্রানজিট, বাণিজ্য এবং প্রবেশাধিকারের সব‌ পথ বন্ধ করে দিয়েছে। কিন্তু তালিবানরা আফগানিস্তান দখলের পর থেকেই কাশ্মীর নিয়ে নতুন করে বাড়ছে চিন্তা। তবে তালিবান নেতার বিবৃতির পর ভারত-তালিবানদের সম্পর্ক কোন পথে এগোয় সেটাই দেখার।