Press "Enter" to skip to content

ইলেকট্রিক স্কুটার চালিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চরম হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর


কলকাতাঃ দেশজুড়ে পেট্রো পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে আজ সকালে ইলেকট্রিক স্কুটি করে নবান্নে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্নে স্কুটি থেকে নেমেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকার আর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে সরব হন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকি গুজরাটের আহমেদাবাদের মোতেরা স্টেডিয়ামের নাম নরেন্দ্র মোদীর নামে করা নিয়েও প্রধানমন্ত্রীকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আজ স্টেডিয়ামের নাম পাল্টেছে, কাল হয়ত দেশের নাম পাল্টে দেবেন। এছাড়াও তিনি বেসরকারিকরণের তীব্র বিরোধিতাও করেন।

দিনদিন জ্বালানির দাম বেড়ে যাওয়াকে ষড়যন্ত্র বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম ৫০ শতাংশ কমেছে আর দেশে তেলের দাম দ্বিগুণ বেড়েছে। তিনি বলেন, এর পিছনে বড় রহস্য রয়েছে কেন্দ্রের। তিনি এও বলেন যে, প্রধানমন্ত্রী মিথ্যে কথা বলে দেশের মানুষের সঙ্গে ছলনা করছেন।

এরপর গ্যাসের দাম নিয়েও সরব হন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, কেন্দ্রে নরেন্দ্র মোদীর সরকার আসার আগে গ্যাসের দাম ছিল ৪০০ টাকা। এখন সেটা বাড়তে বাড়তে দাঁড়িয়েছে ৮২৫ টাকা। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, একটা বাড়িতে মাসে দুটো গ্যাস লাগে, দুটো গ্যাসে ১৬৫০ টাকা দিলে মানুষ খাবে কি?

মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, কেরোসিনের জন্য ৪ হাজার কোটি টাকার ভর্তুকি দিত। এবারের বাজেটে সেই ভর্তুকি প্রত্যাহার করা হয়েছে। তিনি বলেন, বাংলার দুই কোটি মানুষ কেরোসিনের উপর নির্ভরশীল। তাঁরা এখন আর কেরোসিন পাচ্ছে না। বাজারে চরা দামে বিক্রি হচ্ছে কেরোসিন। পেট্রোলের দাম বাড়লে, ডিজেলের দাম বাড়লে এদের মুখ থেকে কোনও কথা বের হয় না। এই ধান্দাবাজ, দুর্নীতিবাজ বিজেপিকে চাই না।

কেন্দ্র সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলে, অবিলম্বে রান্নার গ্যাসের দাম ৪০০ টাকা প্রতি সিলেন্ডার করতে হবে। নাহলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামব আমরা। তিনি বলেন, কৃষকরা এত মাস ধরে রাস্তায় বসেছে, এবার সাধারণ মানুষও রাস্তায় নামবে।