Press "Enter" to skip to content

ইসলাম সবথেকে বড়ো, হিন্দু তো কোনো ধর্মের মধ্যে পড়ে না: নিশান্ত ভার্মা, কংগ্রেস নেতা

ের নেতারা যেভাবে খোলামেলা হিন্দু ধর্ম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করছেন তাতে দেশের জনতার মধ্যে ব্যাপক আক্রোশ সৃষ্টি হচ্ছে। ের এক নেতা বলেছিলেন ের ধর্মনগরী অযোধ্যা ধসে যাক, প্রলয় চলে আসুক। ভূমিকম্প এসে যেন ভূমি পূজন আটকে দেয়, এমন মনকামনা করেছিলেন কংগ্রেস নেতা। অন্যদিকে কংগ্রেস সাংসদ কুমার কেতকর বলেছেন, রাম কাল্পনিক তাহলে মন্দির কিসের জন্য? উনি বলেছেন রামের অস্থিত ছিল না, সেহেতু রাম মন্দির হওয়ার কোনো যুক্তি হয় না।

এখন আরো এক কংগ্রেস নেতা মাঠে নেমে পড়েছেন এবং হিন্দুদের আবেগকে আঘাত করেছেন। এই কংগ্রেস নেতা হিন্দু ধর্মকে কাল্পনিক বলে দাবি করেছেন। এই কংগ্রেস নেতার নাম । ইনি হিন্দু ধর্মকে ভুয়ো বলে ঘোষণা করে দিয়েছেন।

নিশান্ত ভার্মা একজন মুখর কংগ্রেস নেতা। অনেক টিভি চ্যানেলের ডিবেট অনুষ্ঠানে নিশান্ত ভার্মাকে আপনারা দেখে থাকবেন। নিশান্ত ভার্মা কংগ্রেসের তরফ থেকে টিভি চ্যানেলের ডিবেটে অংশ নেন। নিশান্ত ভার্মা যেভাবে হিন্দুদের আবেগকে আক্রমন করেছেন তাতে যেকোনো হিন্দুদের আক্রোশ প্রকাশ পাওয়া স্বাভাবিক।

নিশান্ত ভার্মা বলেছেন, “এ হিন্দুরা তোমাদের হিন্দু ধর্ম কোনো ধর্ম নয়। এবার বলো তোমরা কোন ধর্ম থেকে? ভারতের সবথেকে বড়ো ধর্ম ইসলাম। তোমরা কতদিন এই নোংরামি চালাবে।” নিশান্ত ভার্মা ইসলামকে সবথেকে বড়ো ধর্ম বলে দাবি করে হিন্দু ধর্মকে কাল্পনিক বলে ঘোষণা করে দিয়েছেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

নিশান্ত ভার্মা আরো বলেছেন, “হিন্দুরা তোমরা নিজেকে শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী বা সাভারকার করার চেষ্টা করো না। সব নোংরামি শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী, গোলভালকারের থেকেই শুরু হয়েছে। যারা নিজেদের হিন্দু মনে করো তাদের হৃদয় সম্রাট নরেন্দ্র মোদী কেন এখনও বিল পাশ করিয়ে হিন্দুকে ধর্মকে ধর্মের সংজ্ঞা দেয়নি? মোদী নিজেকে হিন্দু সম্রাট মনে করে কিন্তু সে একজন মিথ্যাবাদী ঝাড়ুবাজ।”