Press "Enter" to skip to content

“উত্তরপ্রদেশে উপদ্রব নয়”- আসাউদ্দিন ওয়েসীর বিরুদ্ধে দায়ের হলো মামলা

উত্তরপ্রদেশ বৃহস্পতিবার, ৯ ই সেপ্টেম্বর ওয়েসীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। উত্তরপ্রদেশের বারাবানকিতে জনসভায় সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বক্তব্য এবং জাতীয় পতাকার অবমাননা করার জন্য AIMIM প্রধান আসাদ‌উদ্দিন ওয়াইসির বিরুদ্ধে দুটি এফআইআর দায়ের হয়েছে।

পুলিশ সুপার (বারাবাঙ্কি) যমুনা প্রসাদ বলেছেন,ওয়াইসি এবং জনসভার আয়োজকদের বিরুদ্ধে ১৫৩ এ (, জাতি ইত্যাদির ভিত্তিতে শত্রুতা প্রচার), ১৮৮ (একজন সরকারি কর্মচারীর আদেশ উপেক্ষা করা), ২৬৯ (রোগ বিস্তারের বিধি উপেক্ষা করা) , ২৭০( রোগের জীবাণু ছড়িয়ে দেওয়ার মতো মারাত্মক পদক্ষেপ) ধারায় এফআইআর করা হয়েছে।

ওয়াইসি, মুসলিম ব্যাঙ্ককে মাথায় রেখে উত্তর প্রদেশে ক্ষমতা কায়েম করতে চান। সম্প্রতি তিনি এক সাম্প্রদায়িক বক্তৃতা দিয়েছিলেন। এআইএমআইএম প্রধান সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য বলেছেন, যে প্রশাসনের দ্বারা ১০০ বছরের পুরনো সানেহি ঘাট মসজিদটি ধ্বংস করা হয়েছিল এবং এর ধ্বংসাবশেষও সরানো হয়েছিল।

ওয়াইসি যে মসজিদটির কথা বলছিলেন তা ছিল তহসিল চত্বরের কাছাকাছি এবং এসডিএমের অ্যাপার্টমেন্টের বিপরীতে। বারাবাঙ্কি এসডিএম আদালতের নির্দেশে, এটি ১৭ ই মে ভেঙে ফেলা হয়েছিল। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদর্শ সিংহের মতে, মসজিদটি অবৈধ ছিল।এসপি যমুনা প্রসাদ বলেছেন, যে ওয়াইসি প্রধানমন্ত্রী এবং উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অশালীন এবং ভিত্তিহীন মন্তব্য করেছিলেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, মীম নেতা বারাবাঙ্কিতে তাঁর বক্তব্যে বিতর্কিত আইনের বিরুদ্ধে আইন প্রণয়ন এবং সংশোধনী আইন () প্রবর্তনের জন্য বিজেপিকে নিশানা করেছিলেন।

ওয়াইসি আরও দাবি করেছে, ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে সারা দেশে শুধুমাত্র মুসলমানদেরই টার্গেট করে এনকাউন্টার করা হয়েছে। এআইআইএমআইএম প্রধান এবং সভার আয়োজকদের বিরুদ্ধে আরেকটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে কারণ তারা জাতীয় পতাকা উত্তোলনের পরিবর্তে মঞ্চে একটি খুঁটির চারপাশে মুড়িয়ে ফেলে রেখেছিল।