Press "Enter" to skip to content

একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশের প্রধানমন্ত্রীর নতুন পার্লামেন্ট ভবনের ভূমি পুজো করা উচিৎ নয়ঃ মহুয়া মৈত্র


নয়া দিল্লীঃ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র () মোদী আগামী ১০ই ডিসেম্বর ২০২০ নতুন সংসদ ভবনের ভূমি পুজো করবেন। এই ঘোষণার সাথে সাথে বিরোধীরা ধর্মনিরপেক্ষতার শক্তি দিয়ে এই পদক্ষেপকে অ-ধর্মনিরপেক্ষ প্রমাণ করার কাজে লেগে গিয়েছে।

তৃণমূল () সাংসদ মহুয়া মৈত্র () নতুন সংসদ ভবনের নির্মাণের আগে ভূমি পুজোর অনুষ্ঠানের বিরোধিতা করেছেন। ওনার মতে, ভূমি পুজো ধর্মনিরপেক্ষতার সংজ্ঞা হতে পারে না। উনি জানিয়েছেন, একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশে প্রধানমন্ত্রী নতুন সংসদ ভবনের শিলন্যাস করতে পারেন, কিন্তু ভূমি পুজো না। তিনি নিজের ট্যুইটে এও বলেছেন যে, আমি হিন্দু বিরোধী নই, আমি সংবিধানের সমর্থক মাত্র।

তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র রবিবার সরকারের সিদ্ধান্তের পর ক্ষোভ প্রকাশ করেন। একটি ট্যুইটে উনি বলেন, দেশের প্রধানমন্ত্রীকে ধর্মনিরপেক্ষ বহু মতে বিশ্বাসী গণতান্ত্রিক দেশে ভূমি পুজো না করে নতুন সংসদ ভবনের শিলন্যাস করা উচিৎ। নিজেকে সংবিধানের সমর্থক বলে তৃণমূল সাংসদ এও বলেন যে, ওনার এই মন্তব্য হিন্দু বিরোধী না।

উনি একটি ট্যুইট করে লেখেন, ‘একটি ধর্মনিরপেক্ষ বহু মতে বিশ্বাসী গণতান্ত্রিক দেশে প্রধানমন্ত্রীকে নতুন সংসদ ভবনের শিলন্যাস করা উচিৎ ভূমি পুজো না করে। আমি এটা বলছি বলে আমি হিন্দু বিরোধী না। আমি শুধুমাত্র সংবিধানের সমর্থক।”

https://platform.twitter.com/widgets.js

জানিয়ে দিই, লোকসভার স্পীকার ওম বিড়লা (Om Birla) শনিবার প্রধানমন্ত্রী দ্বারা ১০ই ডিসেম্বর নতুন সংসদ ভবনের শিলন্যস আর ভূমি পুজো করা হবে সেই কথা জানান। ওম বিড়লা বলেন, ১০ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নতুন সংসদ ভবনের ভূমি পুজো করবেন, এরপর নতুন সংসদ ভবনের শিলন্যাস করা হবে। ১১ ই ডিসেম্বর থেকে নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হয়ে যাবে।

https://platform.twitter.com/widgets.js