Press "Enter" to skip to content

‘এবার ভারতের দরকার এক দেশ, এক ভোটের” সংবিধান দিবসের ভাষণে বড়সড় ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর

নয়া দিল্লীঃ প্রধানমন্ত্রী () বৃহস্পতিবার সংবিধান দিবসের অবসরে কেবড়িয়ায় একটি অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ আরও একবার দেশে ‘এক দেশ, এক নির্বাচন” () শুরু করার দিকে জোর দেন। প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেন, ২০০৮ সালে পাকিস্তান থেকে আসা সন্ত্রাসীরা মুম্বাইয়ে যা করেছিল, সেটা গোটা বিশ্ব দেখেছে, ওই দিন শয়ে শয়ে মানুষ প্রাণ হারান। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারত এখন নতুন নীতির সাথে সন্ত্রাসবাদের মুখোমুখি হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন আজ ভারতের ওয়ান নেশন, ওয়ান ইলেকশনের দরকার। দেশে কয়েকমাস পর পরই কোথাও না কোথাও নির্বাচন হচ্ছে, আর এটা নিতে এখন চিন্তা করা উচিৎ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, এখন আমরা সম্পূর্ণ ভাবে ডিজিটাইজেশনের দিকে এগোচ্ছি আর কাগজের ব্যবহার এখন আমাদের বন্ধ করা উচিৎ। স্বাধীনতার ৭৫ বছরের কথা মাথায় রেখে আমাদের নিজেদেরই এই লক্ষ্য স্থির করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, সংবিধানের রক্ষায় আদালতের বড় ভূমিকা আছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৭০ এর দশকে এই সংবিধান ভাঙার চেষ্টা করা হয়, কিন্তু সংবিধানই এর জবাব দেয়। এমার্জেন্সির সময়ের পর সিস্টেম মজবুত হয়ে যায়, আর সেটা থেকে আমরা অনেক কিছু শিক্ষাও পাই।

উনি বলেন, নাগরিকদের সংবিধান বোঝা উচিৎ আর সংবিধান হিসেবেই চলা উচিৎ। জনতাকে KYC মানে Know your Constitution এ জোর দেওয়া উচিৎ। বিধানসভার চর্চার সময় জনগনের যোগদান কি করে বাড়ানো যায়, সেটা নিয়ে আলোচনা হওয়া উচিৎ।

উনি বলেন, করোনা কালে দেশে মানুষ সংবিধানের উপর বিশ্বাস করে সমর্থন করেছে। সংসদে এবার নির্ধারিত সময়ে অনেক বেশি কাজ হয়েছে, সাংসদেরা নিজেদের বেতন কাটিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা কালেও দেশে নির্বাচন হয়েছে নিয়ম অনুসারে সরকারও গঠন হয়েছে, এটাই সংবিধানের শক্তি।