Press "Enter" to skip to content

“এবার মুসলিমরা কোথায় বীফ কিনবে আপনি বলুন!”- সাংবাদিকের প্রশ্নের কড়া উত্তর দিলেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা

অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা (Himanta Biswa Sarma) সোমবার গোহত্যা আর বিক্রির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করতে রাজ্যের বিধানসভায় গবাদি পশু সংরক্ষণ বিল পেশ করেছেন। শর্মা বলেন, নতুন আইনের উদ্দেশ্য হ’ল সক্ষম কর্তৃপক্ষ কর্তৃক মনোনীত আইন ব্যতীত অন্য জায়গায় গরুর মাংস বিক্রি ও ক্রয় নিষিদ্ধ করা।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, নতুন আইন এটা সুনিশ্চিত করবে যে, সেইসব এলাকায় গোমাংসের ব্যবসার অনুমতি দেওয়া হবে না, যেখানে হিন্দু, শিখ আর গোমাংস না খাওয়া সম্প্রদায়ের মানুষের বসবাস রয়েছে। এছাড়াও কোনও মন্দির এবং হিন্দুদের ধার্মিক স্থলের ৫ কিমির মধ্যেও গোমাংস পুরোপুরি নিষিদ্ধ থাকবে। তবে মন্দিরের ৫ কিমির মধ্যে বীফ হওয়ার দরুন পেটে ব্যথা শুরু হয়েছে ও স্বঘোষিত বুদ্ধিজীববর্গের।

এই পরিপ্রেক্ষিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল ভিডিওতে টাইমস নাও এর সাংবাদিক হিমন্ত বিশ্ব শর্মাকে দেখা যাচ্ছে বীফ ব্যান করা নিয়ে প্রশ্ন করছেন। মহিলা সাংবাদিক মুখ্যমন্ত্রীকে প্রশ্ন করে বলেন, মন্দিরের ৫ কিমির মধ্যে বীফ ব্যান করলে মুসলিম বহুল এলকার মুসলিমরা কিভাবে বীফ কিনবে? আপনি বলে দিন কোথায় থেকে মুসলিমরা বীফ কিনবে?

মহিলা সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেন, আমার কাজ বীফ সাপ্লাই দেওয়া নয়। আমার কাজ হচ্ছে গোমাংসের উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা। তাই গোমাংস কোথায় পাওয়া যাবে সেই উত্তর আমি দিতে পারবো না। প্রসঙ্গত, হিমন্ত বিশ্ব শর্মার এমন যুক্তি-সংগত উত্তরের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে পড়েছে। অনেকে হিমন্ত বিশ্ব শর্মাকে উত্তর-পূর্ব ভারতের যোগী আদিত্যনাথ বলে আখ্যা দিতে শুরু করেছেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

উল্লেখ, নতুন বিলে জরুরি নথিপত্র না থাকলে গরু এক জেলা থেকে অন্য জেলায় নিয়ে যাওয়া এবং কেনা-বেচা অবৈধ বলে গণ্য করা হয়েছে। পাশাপাশি নতুন বিলে আইন অমান্য হলে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা দায়ের করার নিদান দেওয়া হয়েছে। বিলে উল্লেখ করা হয়েছে যে, দোষী সাব্যস্ত হলে কমপক্ষে তিন বছর এবং সর্বাধিক ৮ বছরের সাজা এবং ৩ থেকে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা দুই’ই হবে। নতুন আইন অনুযায়ী, কোনও ব্যক্তি যদি একই অপরাধ দু’বার করে, তাহলে তাঁর সাজা দ্বিগুণ হয়ে যাবে।