Press "Enter" to skip to content

এবার রাম মন্দির নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করলেন SP সাংসদ শফিকুর রহমান বার্ক! বললেন . . .

ঃ উত্তর প্রদেশের সম্ভলে সমাজবাদী পার্টির (Samajwadi Party) সাংসদ শফিকুর রহমান বার্ক () অযোধ্যা রাম মন্দিরের ভূমি পুজো নিয়ে বিতর্কিত বয়ান দিলেন। শফিকুর রহমান বার্ক বৃহস্পতিবার বলেন, ছিল, আছে আর থাকবে। সমাজবাদী পার্টির সাংসদ অভিযোগ করেছে যে, ির সরকার ক্ষমতার বলে আদালতের সিদ্ধান্ত বদলে দিয়েছে। এটি আইনী বিচার নয়, এটা আমাদের সাথে অনেক বড় অবিচার হয়েছে। উনি বলেন, রাম মন্দিরের শিল্যনাস করা ধর্মনিরপেক্ষ হতে পারে না।

সাংসদ বলেন, আমরা ধৈর্যের সাথে কাজ করছি। আজও আমরা আল্লাহর ভরসায় আছি আর আশা করছি যে ওই জায়গায় মসজিদ ছিল, আছে আর থাকবে। মসজিদকে কেউ ধ্বস্ত করতে পারবে না। সমাজবাদী পার্টির সাংসদ বলেন, যেই জায়গায় একবার মসজিদ হয়ে যায়, সে জমি আর সেই জায়গা আজীবন মসজিদের থাকে। এটাই ইসলামের নিয়ম। উনি বলেন, মুসলিমদের ভয় পাওয়ার দরকার নেই। ভারতের মুসলিমদের এটা মাথায় ঢুকিয়ে নেওয়া উচিৎ যে, আমরা কারোর দয়ায় চলিনা। আমরা শুধুমাত্র আল্লাহর দয়ায় চলি।

আরেকদিকে, অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র (Narendra Modi) ভুল কাজ করেছেন বললেন, ের মন্ত্রী (Siddiqullah Chowdhury)। একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে RSS এর প্রতিনিধি হিসেবেও কটাক্ষ করেছেন। উনি বলেন, আজ অযোধ্যায় মসজিদ ভেঙে মন্দির হয়েছে। তবে গোটা বিশ্ব জানে ওখানে মসজিদ ছিল। আর কেয়ামত পর্যন্ত মসজিদই থাকবে। উনি এও বলেন যে, ভাগ্যের চাকা কোনদিকে ঘুরবে কেও জানেনা। এখানেও চাকা উল্টো ঘুরতে পারে।

 

উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় শ্রী রাম চন্দ্রের জন্মভূমিতে রাম মন্দিরের ভূমি পুজো এবং শিলন্যাস করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ৫০০ বছরের আন্দোলন আর লড়াইয়ের পর হিন্দুরা রামের জন্মভূমিতে মন্দির করার অনুমতি পেয়েছে। আর এই দিনের সাক্ষী হয়ে রইল ভারত সমেত গোটা বিশ্ব। আরেকদিকে, এই দিনটিকে কালা দিবস হিসেবে আখ্যা দিয়েছে জমিয়তে উলেমায়ে হিন্দ। সংগঠনের নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বলেন, ‘আমাদের কাছে এই দিনটি ধৈর্য্যের দিন। মনোবল বাড়িয়ে নেওয়ার দিন।”