Press "Enter" to skip to content

কঙ্গনার গান্ধী-নেতাজিকে নিয়ে করা মন্তব্যের পর মুখ খুললেন সুভাষকন্যা, দিলেন বড় বয়ান


কলকাতাঃ কঙ্গনা রানাওয়াতের (Kangana Ranaut) বিতর্কিত বয়ানের আঁচ এবার আছড়ে পড়ল সুদূর জার্মানিতে ()। সম্প্রতি কঙ্গনা রানাওয়াত নিজের ইনস্টাগ্ অ্যাকাউন্ট থেকে মহত্মা গান্ধীকে () উদ্দেশ্য করে তুমুল বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন। যার জেরে ঘরে বাইরে ওনাকে নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। যদিও, এটাই প্রথম না যে কঙ্গনাকে নিয়ে এমন সমালোচনা হচ্ছে, এর আগেও বহুবার তাঁকে নিয়ে নানান বিতর্ক সামনে এসেছে।

উল্লেখ্য, কঙ্গনা নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে দাবি করেছিলেন যে, ‘মহত্মা গান্ধী একজন ক্ষমতা লোভী আর চালাক মানুষ।” কঙ্গনা এও দাবি করেছিলেন যে, মহত্মা গান্ধীর কারণেই ভগৎ সিংয়ের ফাঁসি হয়েছিল। তিনি এও বলেছিলেন যে, মহত্মা গান্ধী নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আর ভগৎ সিংকে সমর্থন করতেন না। কঙ্গনার এহেন মন্তব্যের জেরে ফের বিতর্কের ঝড় উঠছে।

কঙ্গনার বিতর্কিত মন্তব্যের পর এবার স্বয়ং নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর ( Subhas Chandra Bose) মেয়ে অনিতা বসু (Anita Bose Pfaff) এই নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন। সুদূর জার্মানি থেকে নেতাজির মেয়ে জানিয়েছেন, ‘“নেতাজি এবং গান্ধী উভয়েই মহান বীর ছিলেন যারা ভারতের স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেছিলেন। একজন আরেকজনকে ছাড়া এই কাজ করতে পারতেন না। এটি একটি সমন্বয় ছিল।”

অনিতাদেবী আরও বলেন, ‘কিছু সদস্য দীর্ঘদিন ধরে দাবি করেছিলেন, শুধুমাত্র অহিংস নীতির কারণেই ভারত স্বাধীন হয়েছে। এটা সম্পূর্ণ ভুল। আমরা সকলেই জানি যে নেতাজি এবং আইএনএ-এর পদক্ষেপগুলিও ভারতের স্বাধীনতায় অনেক অবদান রেখেছিল।” তিনি আরও বলেন, “অন্যদিকে, এটা দাবি করা অযৌক্তিক হবে যে শুধুমাত্র নেতাজি এবং আইএনএ-র কারণেই ভারতে স্বাধীনতা এসেছিল। গান্ধী, নেতাজি সহ অনেককে অনুপ্রাণিত করেছিলেন স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য।”

অনিতা বসু আরও বলেন, ‘মহাত্মা গান্ধী ও আমার বাবার স্বভাব ছিল খুবই জটিল। গান্ধী অনুভব করেছিলেন যে তিনি আমার বাবাকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন না। একই সঙ্গে আমাদের এটাও ভাবা উচিত যে আমার বাবা মহাত্মা গান্ধীর একজন বড় ভক্ত ছিলেন।” অনিতা বোস বলেন, নেতাজি সর্বদা তার কাজের প্রতি মহাত্মা গান্ধীর প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে আগ্রহী ছিলেন।