Press "Enter" to skip to content

কলকাতায় পুরসভার টিকিট নিয়ে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, চলল কয়েক রাউন্ড গুলি! আতঙ্কে এলাকাবাসী


কিছুদিন আগেই কলকাতায় শ্যুটআউট দেখা গিয়েছে। নিউটাউনের একটি আবাসনে ের ে নিকেশ হয়েছে দু’জন সশস্ত্র । ওই দুই দুষ্কৃতীর মাথার দাম ১৫ লক্ষ টাকা ছিল। তাঁরা কীভাবে কলকাতায় এসে সেফ জোনে ঘাঁটি গাড়ল? সেটা নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। আর সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই বেহালার (Behala) মুচিপাড়ায় (Muchipara) দুষ্কৃতীদের তাণ্ডব দেখা গেল। ভরদুপুরে দুষ্কৃতীরা তাণ্ডব চালায় এলাকায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে, তাঁদের সামনেও গুলি চলে।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, মোট তিন রাউন্ড গুলি চলেছে মুচিপাড়ার জনবহুল এলাকায়। দুষ্কৃতীরা বাইকে করে এসে তাণ্ডব শুরু করে। এরপর বাঁশ-লাঠি দিয়ে এলাকাীকে মারধোর করে। সেই সময় তাঁরা দুই রাউন্ড গুলিও চালায়। গুলির আওয়াজে এদিক ওদিক পালাতে শুরু করে স্থানীয়রা। খবর পেতেই এলাকায় পৌঁছে যায় বিশাল পুলিশ বাহিনী। যদিও পুলিশ দেখেও শান্ত হয়নি তাঁরা। পুলিশের সামনেও এক রাউন্ড গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা।

পুলিশের সামনে গুলি চালানোর পর সেখান থেকে চম্পট দেয় তাঁরা। ঘটনার পর এলাকাবাসীর মধ্যে তুমুল আতঙ্ক ছড়িয়েছে। ফের যাতে দুষ্কৃতীরা এসে তাণ্ডব না করতে পারে, সেই কারণে এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। স্থানীয়দের অভিযোগ, পুরোভোটে কে টিকিট পাবে সেই নিয়েই এই ঘটনার সুত্রপাত।

প্রসঙ্গত, শনিবার রাতেই ঘটনার সূত্রপাত। গতকাল রাতে বেহালার ১২১ নম্বর ওয়ার্ডের মুচিপাড়ায় গোলাগুলি চলে। রাতের অন্ধকারে একদল দুষ্কৃতী এলাকার এক বাসিন্দার বাড়িতে চড়াও হয়। বাড়ির সামনে থাকা একটি অ্যাম্বুল্যান্সে ভাঙচুর চালায় তাঁরা। এরপর দুই রাউন্ড গুলিও চালায়। গুলি চলার পর এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ আসার আগেই দুষ্কৃতীরা এলাকা ছেড়ে পালায়। এরপর আজ দুপুরে আবারও দুষ্কৃতীরা তাণ্ডব চালায়।