Press "Enter" to skip to content

কাঠুয়া কাণ্ডের নয়া মোড়। আসিফার ধর্ষণ হয়নি,জানালো মেডিকেল রিপোর্ট।

কাঠুয়া কান্ডকে কেন্দ্র করে কয়েকদিন ধরে দেশ জুড়ে চর্চা তুঙ্গে রয়েছে। আমরা আপনাদের আগেই জানিয়েছিলাম নিষ্পাপ ৮ বছরের আসিফার হত্যাকে কেন্দ্র করে কিছু বুদ্ধিজীবী, ধর্ম ও রাজনীতির খেলায় নেমে পড়েছে। আপনাদের আমরা এটাও জানিয়েছিলাম যে , আসিফাকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু কিছুজন বুদ্ধিজীবী ও কিছু বিক্রিত মিডিয়া ব্যাপারটাকে রাজনীতি ও ধর্মের ভিত্তিতে টেনে হিন্দুধর্মকে বদনাম করার চেষ্টায় রয়েছে।

আসলে আসিফার প্রথম ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছিল যে আসিফার ধর্ষণ হয়নি হত্যা করা হয়েছে। পরে অবশ্য এই রিপোর্ট ২ বার পরিবর্তন করে বলা হয় আসিফার ধর্ষণ হয়।
তবে এখন তদন্তের পরিপ্রেক্ষিতে যে রিপোর্ট সামনে আসছে তা জানলে আপনিও হবেন। রিপোর্ট জানার পর আপনিও হতবাক হবেন এই ভেবে যে কিভাবে আসিফার মৃত্যুকে হাতিয়ার করে কিছুজন হিন্দু ধর্মকে বদনাম করার চেষ্টা করছিল।

রিপোর্টে জানা গেছে আসিফার গণধর্ষণ তো দূর আসিফার ধর্ষণ পর্যন্ত হয়নি। এই বক্তব্য দুটি আলাদা আলাদা ডক্টরঃ এর রিপোর্ট থেকে সামনে এসেছে। মন্দিরে আটকে রেখে ১ সপ্তাহ ধরে ধর্ষণের যে মিথ্যা ঘটনাকে সাজানো হয়েছিল তা মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। এই মামলার পর্যবেক্ষণের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল এসআইটিকে। এআইটি আসিফের মেডিকেল ২ টি ডক্টরঃ দিয়ে পরীক্ষা কোরান। সেই রিপোর্ট থেকে জানা গেছে আসিফার কোনো ধর্ষণ হয়নি। মন্দিরে আটকে রেখে আসিফার রেপ করা হয়েছে এই বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা। মনে করা হচ্ছে এই বিষয়টি রটানো হয়েছিল শুধু মাত্র হিন্দু ধর্মের বদনাম করানোর জন্য।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.