Press "Enter" to skip to content

কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের সেবকদের কষ্ট দূর করলেন প্রধানমন্ত্রী, পাঠালেন এই বিশেষ উপহার

[ad_1]

নয়া দিল্লিঃ সারা উত্তর ভারত জুড়ে এখন তীব্র শীত পড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে যারা খালি পায়ে কাজ করেন তাদের অনেক সমস্যায় পড়তে হয়। এই ধারাবাহিকতায় বারাণসীর (Varanasi) কাশী বিশ্বনাথ (Kashi vishwanath) মন্দিরের প্রাঙ্গণে কর্মরত কর্মীদেরও খালি পায়ে দায়িত্ব পালন করতে হয়। তাদের সমস্যার কথা মাথায় রেখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) কাশী বিশ্বনাথ ধামের কর্মচারী এবং সেখানে নিযুক্ত জওয়ানদের জন্য ১০০ জোড়া পাটের জুতো পাঠিয়েছেন।

এতে এই কর্মচারীরা এখন প্রচণ্ড ঠান্ডায় অনেকটা স্বস্তি পাবেন। একজন আধিকারিক বলেছেন যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই বিষয়ে সরাসরি জড়িত এবং তিনি বারাণসীর উন্নয়ন সম্পর্কিত সমস্ত দিক নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদীর নির্দেশের পর, কর্মীদের জন্য ১০০টি পাটের জুতা দিল্লি থেকে পাঠানো হয়েছে। দিল্লি থেকে আসার পরে রবিবার বিভাগীয় কমিশনার দীপক আগরওয়াল মন্দিরে কাজ করা শাস্ত্রী, পুরোহিত, সিআরপিএফ জওয়ান, পুলিশ, সেবাদার এবং ঝাড়ুদারদের জুতা বিতরণ করেছেন। জোনাল কমিশনারের জানান, দিল্লি থেকে আরও জুতা আসবে।

এক আধিকারিক জানিয়েছেন যে, কাশী বিশ্বনাথ ধামে কর্মরত লোকেরা এতে যে খুবই খুশি তা বলার অপেক্ষা রাখে না। পাশাপাশি ছোটখাটো বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী কতটা গুরুত্ব দেন তার আরেকটি উদাহরণ এটি। উল্লেখনীয়, মন্দির চত্বরে চামড়া বা রাবারের তৈরি জুতো পরা নিষিদ্ধ। আর এই কারণেই প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে পাটের জুতো পাঠানো হয়েছে।

বলে দিই, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ১৩ ডিসেম্বর কাশী বিশ্বনাথ করিডোর উদ্বোধন করেছিলেন। জনসাধারণের কাছে এটি উৎসর্গ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, “বিশ্বনাথ ধামের এই সম্পূর্ণ নতুন কমপ্লেক্সটি কেবল একটি বিশাল ভবন নয়, এটি আমাদের ভারতের সনাতন সংস্কৃতির প্রতীক! এটা আমাদের আধ্যাত্মিক আত্মার প্রতীক! এটি ভারতের প্রাচীনত্ব, ঐতিহ্যের প্রতীক! ভারতের শক্তি, গতিশীলতার প্রতীক।”

[ad_2]