Press "Enter" to skip to content

কৃষকদের সমর্থনে ডাকা কংগ্রেসের বিক্ষোভে গেল না তৃণমূল, বিরোধী ঐক্য নিয়ে জল্পনা

নয়া দিল্লীঃ কেন্দ্রের তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে বিগত ৮ মাস ধরে কৃষকরা দিল্লী সীমান্তে ধরনায় বসেছে। এমনকি বিরোধীরাও কৃষি আইনকে ইস্যু করে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এক হয়েছে। আর আজ সেই সুত্রেই দিল্লী যন্তর-মন্তরে কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধীর (Rahul Gandhi) নেতৃত্বে ১৪টি বিরোধী দল বিক্ষোভ দেখায়। বিরোধী দলের নেতারা কৃষকদের সঙ্গে আলোচনাও করেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধীকে প্ল্যাকার্ড হাতে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতেও দেখা যায়। এছাড়াও এই বিক্ষোভে উপস্থিত ছিলেন বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী এবং কংগ্রেস সাংসদ মল্লিকার্জুন খড়গে। তবে কংগ্রেসের নেতৃত্ব হওয়া এই আন্দোলনে দেখা মিলল না তৃণমূল কংগ্রেস (All India Trinamool Congress), আম আদমি পার্টি আর বহুজন সমাজ পার্টির নেতা-নেত্রীদের।

https://platform.twitter.com/widgets.js

শুক্রবার সকালে কৃষি আইনের বিরুদ্ধে সরব হয়ে যন্তর-মন্তরে আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে দাঁড়ান তৃণমূলের সাংসদরা। প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, দোলা সেন এবং অপরূপা পোদ্দার কৃষকদের সঙ্গে গিয়ে কথা বলেন। তাঁরা কৃষকদের আশ্বস্ত করেন যে, আগামী মাসেই সম্ভবত দিল্লী যাবেন তৃণমূল নেত্রী। দিল্লীর কনস্টিটিউশন ক্লাবে একটি বৈঠক করতে পারেন তিনি। এরপর তিনি গাজীপুর ও দিল্লীর অন্যান্য সীমান্তে গিয়ে কৃষকদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন।

উল্লেখ্য, একুশের মহারনে জয়ের পর তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধীদের এক করার লক্ষ্যে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছেন। কিন্তু ঐক্যবদ্ধ বিরোধী জোটের মধ্যে বেশ কিছু জায়গায় ফাটল দেখা দিয়েছে। এর আগে কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধীর ডাকা একটি বৈঠকে উপস্থিত ছিল না তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা। আর এবার কৃষি আইনের বিরুদ্ধে হওয়া আন্দোলনেও তাঁদের দেখা গেল না। এই নিয়ে রাজনৈতিক মহলে অনেক প্রশ্ন উঠছে।