কেজরিওয়ালের নাটকের পর্দাফাঁস!!মোদী বিরোধিতায় অনশনে বসে খাবার চুরির অভিযোগ উঠলো কেজরিওয়াল ও তার মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে।

দিল্লীর মুখ্যমন্ত্রী পদে অরবিন্দ কেজরিওয়াল আসার আগে উনি দিল্লীবাসীকে এমন এমন সুযোগ সুবিধার লোভ দেখিয়েছিলেন যা জানলে আপনিও চমকে যাবেন। যদিও অরবিন্দ কেজরিওয়াল তার দেওয়া একটাও প্রতিশ্রুতি রাখতে পারেননি উল্টে তিনি নিজেই কোটি কোটি টাকার কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পরে CBI এর খাপে পড়ে গিয়েছেন। তাই এখন কেজরিওয়াল বেশিরভাগ সময় দিল্লীবাসীর উন্নয়ন করার বদলে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোপ ও রাস্তায় নামতে ব্যাস্ত থাকেন। আপনাদের জানিয়ে দি এই সময় দিল্লীবাসী চরম জলকষ্টে ভুগছে ।

কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল এখন মোদীজির বিরুদ্ধে অনশনে বসেছেন। কারণ হিসেবে তিনি জানিয়েছেন যে দিল্লীবাসী পূর্ণাঙ্গ রাজ্যের মর্যাদা চাই আর সেই দাবি পূরণের লক্ষেই তিনি অনশনে বসেছেন। যদিও এই দাবি লিখিতভাবেও করা যেত। কিন্তু এই অনশন চলাকালীন এমন এক ঘটনা ঘটেছে যার পর কেজরিওয়ালের আসল নাটক সবার সামনে খুলে গেছে। আসলে কেজরিওয়াল তার মন্ত্রীরা টানা ৬ দিন অনশনে আছেন বলে দাবি আমআদমি পার্টির।

কিন্তু ৪ দিনের মাথায় কেজরিওয়াল ও তার মন্ত্রীদের স্বাস্থ্যপর্যবেক্ষণ করা হলে দেখা যায় যে অনশনের পর যে জায়গায় সবার ওজন কমার কথা সেখানে মন্ত্রীদের ওজন বেড়ে গেছে। এমনকি অনশনে বসে থাকা সত্যেন জৈন এর ওজন তো ১.২ কিলো পর্যন্ত বেড়ে গেছে। যার পর থেকে রাজ্যজুড়ে হৈচৈ শুরু হয়েগিয়েছে। এপালো হাসপাতালের ডাক্তার ডি. কে আগরওয়াল জানিয়েছেন যে অনশন করলে মানুষের ওজন কখনোই বাড়তে পারে না ,হয় ওজন কমবে বা সমান থাকবে। অন্যদিকে বিজেপির কপিল মিশ্র জানিয়েছেন যে কেজরিওয়াল তাহলে শেষ অবধি অনশনে বসে খাবারও চুরি করছেন। কেজরিওয়াল ও তার মন্ত্রীদের অনশনের ঘরে সিসিটিভি লাগানো হোক যাতে তাদের সমস্তকিছু মিথ্যা নাটক সবার সামনে আসে।[sg_popup id=”6" event=”onload”][/[/sg_popup]p>

Leave a Reply

you're currently offline

Open

Close