Press "Enter" to skip to content

কেটে গেল রামু বৌদ্ধ মন্দিরে হামলার ৯ বছর! এখনও মুক্ত দোষীরা


২০১২ সালে ফেসবুকে ভুয়ো পোস্ট ছড়িয়ে দিয়ে হামলা চালানো হয়েছিল এশিয়া মহাদেশের বিখ্যাত বৌদ্ধ ে। বাংলাদেশের কক্সবাজার জেলার রামু উপজেলায় অবস্থিত প্রাচীন বৌদ্ধ মন্দিরে হামলার ঘটনায় বিষয়ে এখনো ন্যায় থেকে বঞ্চিত বৌদ্ধ সমাজ। ৯ বছর আগে বৌদ্ধ সমাজের উপর ভুয়ো অভিযোগ তুলে হামলা চালায় বাংলাদেশের উন্মাদী কট্টরপন্থীরা।

কোরআন অবমাননার ভুয়ো অভিযোগ তুলে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয় গুজব। প্রথমদিকে স্থানীয় কট্টরপন্থীরা এই ইস্যুতে বৌদ্ধদের উপর আক্রোশ প্রকাশ করে। কিছু সময় পর বাইরে থেকে এসে এলাকায় জমা হতে থাকে কট্টরপন্থীদের দল। তাপর সন্ধ্যে থেকে শুরু হয় বাড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া, বিভিন্ন অ স্ত্র শস্ত্র নিয়ে হামলা।

প্রায় ৩০ টি বসতি বাড়িকে পুড়িয়ে দেওয়া হয়।
প্রাচীন রামু বৌদ্ধ মন্দিরে হামলা চালিয়ে করা হয় লুটপাট। শত শত মূর্তি ভাঙচুরের সাথে লুট করে নেওয়া হয় ঐতিহ্যবাহী সোনা, ব্রঞ্চ এর বহুমূল্য মূর্তি। ৯ টি বছর কেটে গেলেও এখনও শুকায়নি বৌদ্ধ মন্দিরে হামলার সেই ক্ষত। তার কারণ এত বছর পরেও হয়নি কোনো বিচার, দোষীরা এখনও মুক্ত।

হামলার পর যে তদন্ত হয়েছিল তাতে প্রায় ১৫ হাজার কট্টরপন্থীর নাম এসেছিল। পরে চার্জশিটে শীর্ষ আসামিদের বাদ দিয়ে মাত্র ৩০০ জনের নাম রাখা হয়। রাজনৈতিক কৌশলে করা হয়েছে দোষীদের বাঁচানোর চেষ্টা। অন্যদিকে সাক্ষীদের হুমকি দিয়ে মুখ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

ক্ষতিগ্রস্তরা দোষীদের খুঁজে বের করে শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। তবে যেহেতু ক্ষতিগ্রস্তরা বাংলাদেশে তাই বিচারের কোনো আশা দেখছেন না অনেকেই। হামলার সময়ের বহু ছবি, ভিডিও মিডিয়ার হাতে রয়েছে। যে কোনো সময় পদক্ষেপ নিয়ে দোষীদের চিহ্নিত করার সুযোগ রয়েছে। তবে তা করবে কে সেটাই বড়ো প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে।