Press "Enter" to skip to content

কোয়ারেন্টিন সেন্টারে এসে জামাই আদর খুঁজছেন নাকি? বিস্ফোরক তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়


বীরভূমঃ শনিবার বীরভূমের কোয়ারেন্টিন সেন্টার গুলোর পরিদর্শনে যান () সাংসদ ()। সেখানে ওনাকে কোয়ারেন্টিন সেন্টারের অবস্থা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি মেজাজ হারান। উনি বলেন, কোয়ারেন্টিন সেন্টারে সবাই এসে যদি জামাই আদর খোঁজে, তাহলে হবে কি করে?

উনি বলেন, হাজার হাজার মানুষকে তো আর একসাথে খুশি রাখা সম্ভব না। উনি বলেন, সবার ক্ষোভ মেটানোও সম্ভব না। ডিম দিলে বলবে মাছ হয়নি, মাছ দিলে বলবে মাংস হয়নি, মাংস দিলে বলবে ডিম হয়নি। তাহলে হবে কি করে? উনি বলেন, এতদিন পর সবাই নিজ রাজ্যে ফিরেছেন আর বাড়ি যাওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন তাই সকলে অস্থির হয়ে পড়েছে। এই জন্যই মানুষের মনে একটু ক্ষোভ থাকবেই।

তৃণমূলের তারকা সাংসদের এহেন মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন জেলার বিরোধী নেতারা। বিজেপির বীরভূম জেলা সভাপতি শ্যামাপ্রসাদ মণ্ডল শতাব্দী রায়কে কটাক্ষ করে বলেছেন, কোয়ারেন্টিনে কেউ বিলাসবহুল জীবন চায়না। উনি বলেন, রাজ্যে ফেরত আসা পরিযায়ী শ্রমিকেরা কেমন ভয়ানক বিপদে পড়েছে সেটা আদৌ জানে কি তৃণমূল সাংসদ?

বিজেপি নেতা বলেন, গোডাউনে যেমন চাল-ডাল রাখা হয়, ঠিক তেমনই আলা-পাখাহীন ঘরে পরিযায়ীদের রাখা হয়েছে। তাহলে তাঁরা বিক্ষোভ দেখাবে না? এরকম ভাবে রাখার পরেও সাংসদ বলছেন ওঁরা জামাই আদর খুঁজছে! বিজেপির নেতার দাবি, শতাব্দী রায় বীরভূমের মানুষকে অপমান করেছেন, আর এর জন্য ওনাকে ক্ষমা চাইতে হবে।