Press "Enter" to skip to content

খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে শোভন, ওকে জোর করে হাসপাতালে আটকে রাখা হয়েছেঃ বৈশাখী


এসএসকেএম-এর উডবার্ন ওয়ার্ডে জোর করে আটকে রাখা হচ্ছে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। এরকমই অভি করে বসলেন শোভনবাবুর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, নানান পরীক্ষার নাম করে জোর করে আটকে রাখা হচ্ছে শোভনকে। তিনি এও বলেন যে, সকাল থেকে দেখাও হয়নি আমাদের।

বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এও বলেন যে, সিবিআই-এর হেফাজতে থাকলেও এর থেকে ভালো থাকত উনি। আমি বারবার অনুরোধ করেছি, ব্যক্তিগত বন্ড দিয়ে ছাড়ানোর কথাও বলেছি, কিন্তু কেউ এই বিষয়ে নজর দিচ্ছে না। শোভনবাবু রাগে খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানান বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈশাখী আরও অভিযোগ করে বলেন, অনেকেই ওঁর সঙ্গে কথা বলার জন্য ঢুকে পড়ছে উডবার্নে। তিনি আবেদন জানিয়ে বলেন যে, ‘মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আমি হাতজোড় করে আবেদন করছি। ওঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছে।”

আরেকদিকে সরকারি হাসপাতালে হেনস্থা এবং রাজ্যের দিকে আঙুল তোলায় তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে একহাতে নিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘অকারণে এসব নাটক করা হচ্ছে। ওকে ছাড়ছে না কেন বলে চোখের জল ভাসিয়ে যাত্রাপালা করার জায়গা এটা না। পরিস্কার জানিয়ে দিই, এখানে ের কোনও ভূমিকাই নেই, আর তৃণমূল ত্রিসীমানাতে নেই।”

কুণাল ঘোষ বলেন, ‘শোভনবাবু অসুস্থ বলেই জেল থেকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। আর এখন তিনি হঠাৎ করে বলছেন আমি সুস্থ। উনি সুস্থ কি না সেটা হাসপাতাল ঠিক করবে। ওনার মামলা বিচারাধীন। উনি সুস্থ হলে প্রেসিডেন্সি জেলে যেতে হবে। শোভনবাবু তাঁর মামাবাড়ির বাগানে পায়চারি করছেন না। এখানে বন্ড সই করার মতো জায়গায় নেই তিনি।