Press "Enter" to skip to content

গণতন্ত্র কায়েমের করার জন্য আমি টেবিলে উঠে মাইক ভেঙে দিয়েছি! বললেন AAP সাংসদ

নয়া দিল্লীঃ রাজ্যসভার () আট সাংসদ কৃষি বিল নিয়ে অভদ্র আচরণের কারণে নির্বাসনে আছেন। আম আদমি পার্টির () সাংসদ () ওই আট সাংসদের মধ্যে একজন। কিন্তু উনি মিডিয়ার সাথে কথা বলার সময় স্বীকার করেছেন যে, তিনি সংসদে টেবিলের উপরে উঠে মাইক ভেঙে দিয়েছিলেন। আর এর যুক্তি হিসেবে তিনি বলেছেন, গণতন্ত্র কায়েম করার জন্যই তিনি এই কাজ করেছিলেন। উনি জানান, সরকারের এই বিলের জন্য ক্ষমা চাওয়া উচিৎ। সরকার গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ করছে।”

রাজ্যসভার সভাপতি আর দেশের উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু জানান, নিজেদের অভদ্র আচরণের জন্য কোনও সাংসদই ক্ষমা চাননি। এই নিয়ে সঞ্জয় সিং জানান, সাংসদেরা মানসিক দিক থেকে কমজোর অথবা পাগল না। তাঁরা দেশের সংসদের প্রতি দায়বদ্ধ। সাংসদেরা অপেক্ষা করছে যে, সরকার ন্যায় করবে আর সদনকে সংবিধান আর আইনের হিসেবে চালাবে। উনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দেখুন কীভাবে আইন আনা হছে। বিপক্ষ সাংসদেরা বিল নিয়ে ভোটিং চেয়েছিল, কিন্তু সরকার ভোটিংয়ের জন্য প্রস্তুত না।

‘আমাদের পক্ষে যেটা করনীয় ছিল, সেটাই করেছি আমরা” 

বিক্ষোভ দেখিয়ে কি হাসিল হয়েছে এই প্রশ্নের উত্তরে সঞ্জয় সিং বলেন, সরকার যদি গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ করতে চায় আর সংবিধানের প্রতি সন্মান যদি না দেখায়, তাহলে আমরা কি করব? আমাদের পক্ষে যেটা করার ছিল, আমরা সেটাই করেছি। এবার আমরা শুধু কৃষকদের চোখে চোখ রেখে এটাই বলতে পারি যে, যতটা বিরোধিতা করতে পারেন, করুন।

ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নে সঞ্জয় সিং বলেন, প্রথমে সরকারের উচিৎ ক্ষমা চাওয়া। এই বিলকে প্রত্যাখ্যান করা উচিৎ। সরকার পাপ করেছে, সেটার প্রায়শ্চিত্ত করুক।