Press "Enter" to skip to content

গণনায় ব্যাপক কারচুপি হয়েছে! গুরুতর অভিযোগ প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদের


কলকাতাঃ বাংলায় বিধানসভা ের পূর্বে ছেলের পথ ধরেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছিলেন অধিকারী পিতা শিশির অধিকারী (sisir adhikari)। বাংলায় বিজেপির দারুণ সাফল্যের কামনা করলেও, ডবল ইঞ্জিনের সরকার গড়ার স্বপ্ন কার্যত দুই অঙ্কের গন্ডিতেই সীমাবদ্ধ হয়ে যায় পদ্ম শিবিরের। তবে বিজেপির হারের পর সেভাবে মুখ না খুললেও, এবার বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ শিশির অধিকারী।

ঘাসফুলের কর্তৃত্বের অবসান ঘটিয়ে বাংলার আকাশ গেরুয়া আভায় ঢেকে দিয়ে চেয়েছিল পদ্ম শিবির। সেইমত প্রচার, প্রস্তুতি, রোড শো, জনসভা- কোনকিছুরই খামতি রাখেনি। ২০০ অঙ্কেরও বেশি আসনে জয়লাভ করে বাংলার মসনদে বসার স্বপ্ন দেখেছিল শিবির। সেইমত নির্বাচনের পূর্বে দেখা গিয়েছিল, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃত্বরা তাঁদের পুরনো ঘর ছেড়ে, বিজেপির খাতায় নাম লিখিয়েছিলেন।

কিন্তু ২ রা মে’র ফলপ্রকাশে উল্টে যায় পাশার চাল। ২০০-র গণ্ডি তো অনেক দূরের কথা, দুই অঙ্কের গন্ডিই পেরোতে পারেনি বিজেপি শিবির। আবারও একক সংখ্যা গরিষ্ঠতার ভিত্তিতে বাংলা শাসনের চাবিকাঠি চলে যায় তৃণমূলের হাতেই। এমনকি আশানুরূপ স্থানেও, তৃণমূলের কাছে বিরাট ব্যবধানে হেরেছেন বিজেপি প্রার্থীরা।

নির্বাচনের পূর্বে অবিভক্ত মেদিনীপুর জেলার ৩৫টি আসনের মধ্যে সবকটিতেই বিজেপির আধিপত্যের স্বপ্ন দেখেছিলেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আগত তথা বর্তমানে নন্দীগ্ের শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু নির্বাচন শেষে দেখা যায়, সম্পূর্ণ উল্টো ফল হয়ে তৃণমূলের দখলে চলে যায় সিংহভাগ আসন।

 

তবে নির্বাচন পরবর্তীতে সেভাবে মুখ না খুললেও, এবারে তৃণমূলের জয়ের পেছনের নোংরা রাজনীতির অভিযোগ করলেন শিশির অধিকারী। তিনি বলেন, ‘দিনের আলোর মত পরিষ্কার যে কাউন্টিং-এ কিছু কারছুপি হয়েছে, নাহলে বাংলায় বিজেপির ভালো ফল হত। মানুষকে বোকা বানিয়ে মিথ্যের উপর দাঁড়িয়েছে রাজনীতি করছে তৃণমূল। ভবিষ্যতে ঠিক এর ফল পাবেন মমতা ার্জী’।