Press "Enter" to skip to content

গোবর থেকে তৈরি হচ্ছে প্রাকৃতিক পেইন্ট! নিজের বাড়ির জন্য অর্ডার দিলেন নীতিন গড়করি

দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে প্রধানমন্ত্রী মোদী ‘আত্মনির্ভর ভারত’ এর ডাক দিয়েছিলেন। এখন প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে বেশকিছু ইনস্টিটিউট বড়োসড়ো উপলব্ধি অর্জন করতে সক্ষম হচ্ছে। সম্প্রতি খাদি এন্ড ভিলেজ ইন্ডাস্ট্রিস কমিশন (KVIC) রাজস্থানে এক ইউনিট খুলেছে। এই ইউনিট মূলত প্রাকৃতিক পেইন্ট তৈরি করবে।

জানিয়ে দি, গোবর থেকে তৈরি হবে এই প্রাকৃতিক পেইন্ট। দেশের ৬০ হাজার কোটি টাকার পেইন্ট মার্কেটের একটা অংশও যদি প্রাকৃতিক পেইন্ট দখল করতে পারে তাহলে তা দেশের গ্রামীন অর্থনীতির চেহেরা একেবারে বদলে ে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের।

সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরি করা হবে পরিবেশবান্ধব ও বিষাক্ত অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান যুক্ত পেইন্ট। এর উদ্বোধন করেছে স্বয়ং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করি। এটি এমন একটি পেইন্ট যার প্রধান উপাদান হলো গোবর। এটি ভারতে তৈরি প্রথম গোবর পেইন্ট।

নিতিন গড়কড়ি নিজেকে গোবর দিয়ে তৈরি রঙিন খাদী প্রাকৃত পেইন্টের ‘ব্র্যান্ড অ্যাম্েডর’ ঘোষণা করেছেন। মন্ত্রী ব্র্যান্ডের নতুন অটোমেটেড ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিটের উদ্বোধন করেছেন যা গোবর থেকে তৈরি দেশের প্রথম এবং একমাত্র পেইন্ট হিসাবে উচ্চ প্রশংসিত। এটি জয়পুরের কুমারাপ্পা জাতীয় হস্তনির্মিত কাগজ ইনস্টিটিউট (কেএনএইচপিআই) -এর ক্যাম্পাসে রাখা হয়েছে, যা খাদি এবং গ্রামীণ শিল্প কমিশনের (কেভিসি) একটি ইউনিট।

খাদি ও ক্ষুদ্র শিল্প কমিশন উদ্ নিয়ে এই পেন্টিংটি তৈরি করেছে। নামকরণ করা হয়েছে “খাদি প্রাকৃতিক পেইন্ট”। গন্ধহীন এই পেইন্ট ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ড দ্বারা অনুমোদন প্রাপ্ত। একটি ভারী ভারী ধাতু যেমন শিশা, পারা, ক্রোমিয়াম, আর্সেনিক ও ক্যাডমিয়াম যুক্ত।

সরকারি বিবৃতি অনুযায়ী জানা গিয়েছে, এর ফলে গোবরের ব্যবহার আরো ি পাবে। কৃষক পরিবারের অতিরিক্ত আয় হবে আনুমানিক বার্ষিক ৩০ হাজার টাকা। এর আগে ২০১৯ সালে গোবর থেকে উৎপাদন করেছিল খাদি ও ক্ষুদ্র শিল্প কমিশন।

নীতিন গড়করি দরিদ্রদের সুবিধার্থে উন্নয়ন ঘটানোর ক্ষেত্রে এই পেইন্টের অপার সম্ভাবনার কথা স্বীকার করে বলেন, দেশের প্রতিটি গ্রামে এ জাতীয় একটি প্লান্ট তৈরি করা উচিত। এই উপলক্ষে, তিনি ১০০০ লিটার গোবরযুক্ত পেইন্টের অর্ডারও দিয়েছিলেন, যা নাগপুরে তাঁর নিজ বাসভবনে ব্যবহারের পরিকল্পনা রয়েছে।