Press "Enter" to skip to content

গ্রেফতার করে গোটা রাত দেবাংশুদের না খাইয়ে রেখেছিল পুলিশ! গুরুতর অভিযোগ তৃণমূলের

খোয়াইঃ ত্রিপুরায় কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে যাওয়া খোয়াই থানায় গিয়ে পৌঁছেছেন। ওনার সঙ্গে া সেন, ব্রাত্য বসু, কুণাল ঘোষরাও উপস্থিত রয়েছেন। থানার ভিতরেই পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন নেত্রীরা। পাশাপাশি থানার বাইরে কর্মীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। অভিষেককে দেখে ‘গোব্যাক স্লোগান”ও দেয় তাঁরা।

থানার বাইরে ভিড় দেখে অতিমারি আইন নিয়ে পুলিশকে প্রশ্ন করেন ের নেতারা। ওনারা জানান, থানার বাইরে কমপক্ষে ২ হাজার বিজেপি কর্মী বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। তাঁদের কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না? তৃণমূলের তরফ থেকে অভি করে বলা হয় যে, পুলিশ বিজেপির নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করছেন। অভিষেক ব্যানার্জি কটাক্ষ করে বলেন, ত্রিপুরায় আইনের শাসন নয়, শাসনের আইন চলছে।

অন্যদিকে ধৃত তৃণমূল নেতা-কর্মীদের ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অভিষেক ব্যানার্জি আদালতের শুনানি শেষ না হওয়া পর্যন্ত থানায় ধরনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। থানা থেকেই অভিষেক ব্যানার্জি ত্রিপুরার শাসক দলকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, আর মাত্র ১৭ মাস তারপরেই বিজেপির সরকারের পতন হবে ত্রিপুরা থেকে।

তৃণমূলের তরফ থেকে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলা হয়েছে যে, তাঁদের নেতা-কর্মীদের সারারাত থানায় আটক করে রেখে খাওয়া ও চিকিৎসার বন্দোবস্ত করে দেওয়া হয়নি। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, আগামীকাল তৃণমূলের তরফ থেকে ত্রিপুরার এই ঘটনা নিয়ে দিল্লীতে সংসদ ভবনে বিক্ষোভ দেখানো হবে। গান্ধী মূর্তির পাদদেশে তৃণমূলের সাংসদরা ত্রিপুরার বিজেপির সরকারের বিরুদ্ধে সরব হবেন।