Press "Enter" to skip to content

চীনের অর্থনীতি ধূলিসাৎ করতে অ্যাকশন প্ল্যান তৈরি করল দুটি আর্থিক মহাশক্তি! ভেঙে দেওয়া হবে চীনের কোমর

[ad_1]

ভাইরাস দ্বারা বিশ্ব অর্থনীতি ধ্বংস করার পরে, চীন এই ধান্দায় বসেছিল যে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশের সংস্থাগুলি কম দামে কিনে বিশ্ব অর্থনীতিকে তার নিয়ন্ত্রণে নিয়ে একটি সুপার পাওয়ার হিসাবে পরিণত হবে।

তবে এখন বিশ্বের 2 শীর্ষ অর্থনৈতিক মহাশক্তি চীনের পুরো স্বপ্নকে ধূলিসাৎ করার জন্য একটি অ্যাকশন পরিকল্পনা করেছে। এই দুই আর্থিক মহাশক্তি হল আমেরিকা ও জাপান।

জানিয়ে দি, চীন আগেই অর্থনৈতিক শক্তির দিক থেকে জাপানকে ছাড়িয়ে গেছে। এখন চীন ভাইরাস দ্বারা আমেরিকা ধ্বংস করতে এবং প্রথম নম্বরে আসার অপেক্ষায় ছিল, চীন ভাইরাস ছড়িয়ে দিতে সফল হয়েছিল এবং বিশ্বজুড়ে অর্থনীতিকে নষ্ট করতেও বেশ মুখ্য ভূমিকা নিয়েছে। তবে এখন আমেরিকা ও জাপানও চীনের বিরুদ্ধে দুর্দান্ত অ্যাকশন প্ল্যান তৈরি করে ফেলেছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

অ্যাকশন প্ল্যানের উপর জাপান প্রথম কাজ শুরু করেছে। জাপান চিনে থাকা তার কোম্পানিগুলিকে বন্ধ করার সিধান্ত নিয়েছে। জাপানের পর দক্ষিণ কোরিয়াও একই পথে হাঁটার সিধান্ত নিয়েছে। খবর আসছে স্যামসাং চিনে থাকা তার ফ্যাক্টরীগুলি বন্ধ করার পথে কাজ করছে।

এখন আমেরিকা থেকে খবর আসছে যে, মার্কিন দেশ সংস্থাগুলিকে চীন থেকে সরিয়ে নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে এবং এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি আছে। ফোর্বসের রিপোর্ট অনুযায়ী, US তার বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলিকে চীন থেকে সরিয়ে নেওয়ার জন্য কাজ করছে, এই সংস্থাগুলি চীনে কয়েক বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে।

সুতরাং সংস্থাগুলি হঠাৎ বন্ধ করা যাবে না, মার্কিন সরকার ধীরে ধীরে একের পর এক সংস্থা বন্ধ করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এটা স্পষ্ট যে আমেরিকা ও জাপান চীনকে ঘিরে ফেলার একটি অ্যাকশন পরিকল্পনা তৈরি করেছে। জাপানি, কোরিয়ান এবং আমেরিকান সমস্ত সংস্থার একত্রিত হয়ে যাওয়া চীনের জিডিপিকে এক বড়ো ঝটকা দেব।

এর ফলে চীনা শেয়ার বাজারও নিম্মুখী হবে, এর সাথে, বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলিও তাদের সংস্থাগুলি চীন থেকে প্রতিস্থাপন করতে শুরু করবে । ফলস্বরুপ চীনের অর্থনীতি থেকে বিনিয়োগের ফলে খারাপ মৃত্যু ঘটবে। বিশ্বজয় করতে ভাইরাস ছড়িয়ে দিয়ে চীন একটি বড় ভুল করেছে এবং এখন শীঘ্রই এর ফল চীনকে বহন করতে হবে।

[ad_2]