Press "Enter" to skip to content

চীনের চিন্তা বাড়িয়ে মালাবারে নৌসেনার অভ্যাস শুরু করল ভারত, পাশে দাঁড়াল আরও তিনটি শক্তিধর দেশ

নয়া দিল্লীঃ পূর্ব লাদাখে () জারি গতিরোধের মধ্যে মঙ্গলবার ভারত (), আমেরিকা (), জাপান () আর অস্ট্রেলিয়ার () মালাবার নৌসেনার () অভ্যাসের প্রথম পরজায় শুরু হয়েছে। বঙ্গোপসাগরের বিশাখাপত্তনাম থেকে এই অভ্যাসের শুরু হয়েছে। এই অভ্যাস বিশ্বের চারটি শক্তিশালী দেশের রণনৈতিক সম্পর্ককে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে।

এই অভ্যাস তিনদিন পর্যন্ত চলবে, আগামী শুক্রবার এই অভ্যাসের শেষ দিন। এই চার দেশের মধ্যে দ্বিতীয় পর্যায়ের অভ্যাস ১৭ থেকে ২০ নভেম্বর আরব সাগরে হবে। গত সপ্তাহে ভারত ঘোষণা করেছিল যে অস্ট্রেলিয়াও এই অভ্যাসের অংশ হবে। ভারতের এই ঘোষণাতে আমেরিকাও সহমত হয়েছিল।

Quad সদস্য রাষ্ট্রের বিদেশ মন্ত্রীদের জাপানের টোকিয়োতে বৈঠকের দুই সপ্তাহ পর ভারত অস্ট্রেলিয়াকে এই অভ্যাসে অংশ নেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ পাঠিয়েছিল। জাপানে হওয়া এই বৈঠকে চারটি দেশের মধ্যে ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরে সহযোগ বাড়ানোর জন্য বিস্তৃত আলোচনা হয়েছিল। আধিকারিকরা জানিয়েছিলেন যে, প্রথম পর্যায়ে জটিল আর অত্যাধুনিক নৌসেনা অভ্যাস হবে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

এই অভ্যাসে অ্যান্টি সাবমেরিন আর হাওয়াই যুদ্ধ অভিযান হবে। এছাড়াও হাতিয়ারের ফায়ারিংয়েরও অভ্যাস করা হবে। মালাবার অভ্যাস ১৯৯২ সালে ভারতীয় নৌসেনা আর আমেরিকার নৌসেনার মধ্যে ভারত মহাসাগরে দ্বিপাক্ষিক অভ্যাস রুপে শুরু হয়েছিল। এরপর, ২০১৫ সালে জাপান এই গ্রুপের স্থায়ী সদস্য হয়।

এই অভ্যাসে ভারতীয় নৌসেনার রণবিজয়, রণতরী শিবালিক, পেট্রোলিং জাহাজ সুকন্যা, সাবমেরিন সিন্ধুরাজ অংশ নিচ্ছে। চীনের বেড়ে চলা আক্রমণাত্বক মনোভাবে লাগাম লাগাতে আমেরিকা সুরক্ষার জন্য QUAD এর সমর্থন করছে।