Press "Enter" to skip to content

চীনের সাথে উত্তেজনার মধ্যে বড় সিদ্ধান্ত মোদী সরকারের, লাদাখে শুরু হল ইনফ্রাস্ট্রাকচারের কাজ

নয়া দিল্লীঃ সীমান্ত বিবাদের মধ্যে (Modi Sarkar) (Ladakh) এর আশেপাশে পরিকাঠামো বাড়ানোয় জোর দিলো। আর সেই ক্রমেই লদাখে ৫৪ টি মোবাইল টাওয়ার বানানোর কাজ শুরু করা হয়েছে। LAC এর পাশে ডেমচৌকেও মোবাইল টাওয়ার বসান হবে। নুব্রায় সাতটি, লেহতে ১৭ টি, জন্সকারে ১১ আর কারগিলে ১৯ টি নতুন মোবাইল টাওয়ার বসানো হবে।

সীমান্তে চীনের সাথে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ার পর সেনা প্রধান নরবানে দুদিন আগে লাদাখ সফরে গেছিলেন। সেখানে গিয়ে তিনি আহত জওয়ানদের সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং সেনার কম্যান্ডারদের সাথে বৈঠক করেন। সেনা প্রধান নরবানে, সিডিএস বিপিন রাওয়াতকে লাদাখের পরিস্থিতি নিয়ে তথ্য দেবেন। সেনা প্রধান সরকারকেও এই পরিস্থিতি নিয়ে অবগত করাবেন। সেনা প্রধান দুদিন লাদাখে থেকে সুরক্ষার প্রস্তুতি গুলো খতিয়ে দেখেন।

আরেকদিকে সীমান্তে চলা উত্তেজনার মধ্যে ভারত লাদাখে শক্তিশালী টি-৯০ ভীষ্ম ট্যাংক মোতায়েন করেছে। এর থেকে এটা স্পষ্ট যে সেনা লাদাখে সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়েই নামছে। সীমান্ত নিয়ে প্রায় দুই মাসে ধরে চীনের সাথে বিবাদ লেগেই আছে। চীন নিজেদের এলাকায় ট্যাংক, কামান আর আর্মড বাহন মোতায়েন করার সাথে সাথে প্রচুর সেনাও মোতায়েন করেছে। আর সেই কারণে ভারত চীনকে ্য জবাব দিতে সীমান্তে টি-৯০ ট্যাংক নিয়ে গেছে। এছাড়াও ঘাতক অ্যাপাচে হেলিকপ্টার দিয়ে সবসময় আকাশ সীমায় নজর রাখা হচ্ছে।

লাদাখে ভারত ২০১৬ সালে ট্যাংকের প্রথম ব্রিগেড মোতায়েন করেছিল। প্রথমে টি-৭৫ ট্যাংক মোতায়েন করেছিল ভারত। কিন্তু চীনের তরফ থেকে টি-৯৫ ট্যাংক মোতায়েন করার খবর পাওয়ার পর ভারত টি-৯০ ট্যাংক পাঠিয়ে দিয়েছে। ১৯৬২ এর যুদ্ধে ভারতীয় সেনা লাদাখে হালকা এএসএক্স ট্যাংক পাঠিয়েছিল।

ওই ট্যাংক গুলো চুশুল, প্যাংইয়াং লেক এলাকায় চীনের বিরুদ্ধে কড়া মোকাবিলা করে তাদের রুখতে সক্ষম হয়েছিল। পুরনো অভিজ্ঞতা থেকে ভারতীয় সেনা এটা বুঝে নিয়েছে যে, লাদাখের বালির ময়দানে ভালো ট্যাংক যুদ্ধের পরিস্থিতি বদলে দিতে পারে।