Press "Enter" to skip to content

চীন নয়, ভারত শ্রীলঙ্কার আসল বন্ধু! আবারও প্রমান করে দেখাল মোদী সরকার

বিশ্বের সমস্ত মিডিয়ার নজর এখন আফগানিস্তানের পরিস্থিতির উপর। তবে এসবের মধ্যে ভারত প্রতিবেশী দেশের খারাপ সময়ে পাশে দাঁড়িয়েছে। আফগানিস্তানের খবরের হাওয়ায় যা ধামাচাপা পড়েছে। ভারত প্রতিবেশী দেশ শ্রীলঙ্কাকে ভয়ানক সংকট থেকে বাঁচিয়ে নিয়েছে। ভারত শ্রীলঙ্কার পাশে না থাকলে যা অবস্থা করোনার দ্বিতীয় ওয়েভে রাজধানী দিল্লীর হয়েছিল সে একই অবস্থা শ্রীলঙ্কার হতো। আসলে কোভিড -১৯ মহামারী মোকাবিলায় শ্রীলঙ্কাকে সাহায্যের জন্য ভারতীয় নৌ জাহাজ শক্তি ১০০ টন লিকুইড অক্সিজেন রবিবার পৌঁছে দিয়েছে।

শ্রীলঙ্কার দরকারের সময় হাত গুটিয়ে নিয়েছে চীন ও পাকিস্তান দুই দেশ। অথচ শ্রীলঙ্কা বিপদে বারবার সেই ভারত‌ দেশ শ্রীলঙ্কার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। লক্ষণীয় এর আগে চীনের ঋণের জলে পা দিয়ে বিপদে পড়েছিল শ্রীলঙ্কা। সেই সময়েও প্রতিবেশী দেশকে সংকট থেকে টেনে তুলেছিল ভারত। আর এখন যখন কোনো দেশ অক্সিজেন দিতে রাজি নয়, সেই অবস্থায় অক্সিজেন পৌঁছে আসল বন্ধুত্বের পরিচয় দিয়েছে ভারত।

দেশের বন্দর মন্ত্রী রোহিতা আবেগুনাওয়ার্দেনা কার্গো লিকুইড অক্সিজেন পৌঁছানোর সময় বন্দরে উপস্থিত ছিলেন এবং করোনাভাইরাস মহামারী সঙ্কট মোকাবিলায় ভারতের সহায়তার প্রশংসা করেছেন। ভারতীয় হাই কমিশন জানিয়েছে, অক্সিজেন সরবরাহের জন্য ভারতীয় নৌযান মোতায়েন থেকে শুরু করে লিকুইড মেডিকেল অক্সিজেন (এলএমও) এর জরুরি ব্যবস্থার জন্য শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকস ব্যক্তিগত অনুরোধ করছিলেন।

মহামারী মোকাবিলায় শ্রীলঙ্কাকে ভারত শ্রীলঙ্ককাকে সময়ে প্রয়োজনমতো সাহায্য করে গিয়েছে। ২০২০ সালের এপ্রিল-মে মাসে প্রায় ২৬ টন প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সামগ্রী উপহার দেওয়া হয়েছিল। এছাড়াও, জুলাই ২০২০ সালে ৪০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের মুদ্রা বিনিময় করা হয়েছিল।

ভারতীয় হাই কমিশন জানিয়েছে, ের প্রথম চালান, যা ২০২১ সালের জানুয়ারিতে ভারত থেকে পাঠানো হয়েছিল এবং এর ফলে শ্রীলঙ্কা তাদের টিকাদান কর্মসূচী নির্ধারিত সময়ের আগেই চালু করতে পেরেছিল। এছাড়াও, আফগানিস্তানে আটকে পড়া‌ ৮৬ জন শ্রীলঙ্কান নাগরিককে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য শ্রীলঙ্কা ভারতের সাহায্য প্রার্থনা করেছে এবং ভারত সরকার সাহায্যের আশ্বাস‌ও দিয়েছে‌।