Press "Enter" to skip to content

চূড়ান্ত ছাড়পত্র পেল BSF, মিলল রাজ্যের অন্দরে ঢুকে গ্রেফতারি, তল্লাশি, বাজেয়াপ্ত করার ক্ষমতা

নয়া দিল্লিঃ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রালয় সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনীর (Border Security Force) অধিকার ক্ষেত্র বাড়িয়ে দিল। পাশাপাশি BSF-র আধিকারিকদের ি, তল্লাশি আর বাজেয়াপ্ত করার শক্তিও প্রদান করে হয়েছে মন্ত্রালয়ের তরফ থেকে। BSF-র আধিকারিকরা পশ্চিমবঙ্গ, আর গ্রেফতারি আর তল্লাশি অভিযান চালাতে পারবে। BSF-কে পাসপোর্ট আইন অনুযায়ী এই অ্যাকশন নেওয়ার অধিকার দেওয়া হয়েছে।

অসম, পশ্চিমবঙ্গ আর পাঞ্জাবে পুলিশের মতোই BSF-কে তল্লাশি অভিযান চালানো আর গ্রেফতার করার অধিকার দেওয়া হয়েছে। BSF-র আধিকারিকরা এই তিন রাজ্যে বাংলাদের আর পাকিস্তান বর্ডার থেকে ৫০ কিমি ভারতের অন্দরে এই অ্যাকশন নিতে পারবেন। এর আগে এই আওতা মাত্র ১৫ কিমি ছিল।। এছাড়াও BSF নাগাল্যান্ড, মিজোরাম, ত্রিপুরা, মণিপুর আর লাদ্যাখেও সার্চ অপারেশন ও গ্রেফতারি চালাতে পারবে।

যদিও, এই নির্দেশের সঙ্গে ে BSF-র এলাকা কিছুটা কমে গেল। এতদিন ধরে গুজরাটে সীমান্ত থেকে ৮০ কিমি অন্দরে BSF অভিযান চালাতে পারত। তবে এখন থেকে নতুন নিয়ম অনুযায়ী ৫০ কিমি পর্যন্তই তাঁরা তাঁদের অভিযান চালাতে পারবে। এছাড়াও রাজস্থানে আগের মতোই ৫০ কিমি এলাকা রাখা হয়েছে। পাঁচটি নর্থ ইস্টের রাজ্য মেঘালয়, নাগাল্যান্ড, মিজোরাম, ত্রিপুরা আর মণিপুরের জন্য কোন সীমান্ত নির্ধারণ করা হয়নি। পাশাপাশি জম্মু কাশ্মীর আর লাদাখেও কোনও সীমা নির্ধারিত হয়নি।

সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনীর ১৯৬৮ সালের ১৩৯ ধারা অনুযায়ী, সময়ে সময়ে সীমান্তে বল পরিচালনার ক্ষেত্র এবং সীমানা অধ্যুষিত করার অধিকার আছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক অধিসূচনা জারি করে সীমান্তবর্তী এলাকার শিডিউল সংশোধিত করে এসেছে। সেখানে বিএসএফ-র কাছে পাসপোর্ট আইন, এনডিপিএস আইন, সীমান্ত শুল্ক আইনের মতো আইন অনুযায়ী তল্লাশি, বাজেয়াপ্ত আর গ্রেফতারির ক্ষমতা থাকে।