Press "Enter" to skip to content

জাকির নায়েকের ডানা ছাঁটবে অমিত শাহের দফতর, তৈরি হল স্পেশ্যাল টিম

[ad_1]

নয়া দিল্লিঃ ২০১৬ সালে ভারত (India) থেকে পালিয়ে যাওয়া জাকির নায়েকের (Zakir Naik) ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন (Islamic Research Foundation) সংস্থার বিরুদ্ধে আইনি লড়াই লড়ার জন্য কেন্দ্র সরকার কোমর বেঁধে নিয়েছে। IRF-কে অবৈধ সংগঠন ঘোষিত করার সিদ্ধান্তকে সঠিক প্রমাণের জন্য সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতার নেতৃত্বে সাত সদস্যের আইনজীবীদের একটি দল ঘটন করা হয়েছে। বলে দিই, কেন্দ্রের অবৈধ গতিবিধি দমন আইন (UAPA) ১৯৬৭-র ৩ (১) ধারা অনুযায়ী IRF-কে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছিল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ১৩ ডিসেম্বর ২০২১ এ একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলেছিল যে IRF-কে অবৈধ ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত সঠিক এবং এই মামলায় ভারত সরকারের তরফ থেকে আইনজীবীদের একটি দল UAPA ট্রাইব্যুনালের সামনে পেশ হবে। এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জাকির নায়াকের সংস্থাকে অবৈধ ঘোষণা করার জন্য UAPA অনুযায়ী দিল্লির হাইকোর্টের প্রধান বিচারক ডি এন প্যাটেলের নেতৃত্বে একটি ট্রাইব্যুনাল গঠন করেছিল।

জাকির নায়েকের সংস্থাকে অবৈধ ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত সঠিক কী না, সেটা দেখার জন্যই এই ট্রাইব্যুনালের গঠন করা হয়েছিল। আপনাদের বলে দিই, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সম্প্রতি ভারতে জন্মগ্রহণ করা জাকির নায়েকের সংস্থাকে আরও পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছেন। ২০১৬ থেকে ২০২১ পর্যন্ত নিষিদ্ধ থাকার পর জাকিরের সংস্থার উপর নিষেধাজ্ঞা বাড়িয়ে তা ২০২৬ পর্যন্ত করে দেওয়া হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক স্পষ্ট জানিয়েছিল যে, নায়েকের ভাষণ সাম্প্রদায়ক ও বিদ্বেষমূলক। এই জাকিরের উস্কানিমূলক ভাষণের কারণে দেশে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণা বাড়বে।

মন্ত্রকের মতে, নায়েক মৌলবাদী বয়ান আর ভাষণ দেয় সেটা গোটা বিশ্বের মানুষ দেখে। নায়েক পিস টিভি আর পিস টিভি উর্দু নামের দুটি টিভি চ্যানেলও চালায়। নায়েকের এই দুটি চ্যানেল ভারত, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা আর ব্রিটেনে নিষিদ্ধ হয়েছে। জাতীয় তদন্তকারী দল (NIA) জাকিরের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করতেই সে ভারত ছেড়ে মালয়েশিয়া পালিয়ে গিয়েছিল।

[ad_2]