Press "Enter" to skip to content

জিতলে ইমামদের ভাতা বাড়ানো হবে, মসজিদে গিয়ে ঘোষণা ফিরহাদ হাকিমের


তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা ফিরহাদ হাকিমের উপর গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। আসলে নির্বাচন কমিশন দ্বারা বিধানসভা নির্বাচনে দিনক্ষন ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছে। একই সাথে রাজ্যে মডেল অফ কন্ডাক্ট লাগু রয়েছে। তবে ফিরহাদ হাকিম নির্বাচনী আচরণবিধি উলঙ্ঘণ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ফিরহাদ হাকিমকে শনিবার দিন এক মসজিদে রাজনৈতিক ভাষণ দিতে দেখা গেছে।

মডেল অফ কন্ডাক্টে স্পষ্ট বলা হয়েছে ভোট অর্জন করার জন্য কোনোভাবে জাতি বা সাম্প্রদায়িক অনুভূতিকে কাজে লাগানো যাবে না। মন্দির, চার্চ,মসজিদ বা অন্য কোনো ধার্মিক স্থলকে রাজনৈতিক মঞ্চ হিসেবে ব্যাবহার করা যাবে না।

হিন্দি নিউজ চ্যানেল টিভি নাইন ভারতবর্ষ তাদের এক্সক্লুসিভ স্টোরিতে জানিয়েছেন যে ফিরহাদ হাকিম মসজিদে গিয়ে রাজনৈতিক শ্লোগান দিয়েছেন। রাজ্যের মুসলিম ভোট ব্যাংকে প্রভাব ফেলতে ১৯ বছর আগের গুজরাট দাঙ্গার কথা ফিরহাদ হাকিম উঠিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

উষ্কানীমূলক ভাষণ দিয়ে ফিরহাদ হামিক বলেন, ২০০২ সালের দাঙ্গাকে পশ্চিমবঙ্গে পুনরাবৃত্তি করার অনুমতি দেওয়া যাবে না। উনি মসজিদে উপস্থিত মুসলিমদের কাছে বিজেপি ভোট না দেওয়ায় জন্য অনুরোধ করেন।

https://platform.twitter.com/widgets.js

এছাড়াও ফিরহাদ হাকিম বলেন, মমতা ব্যানার্জীর সরকার এলে ইমামদের জন্য যে ভাতা দেওয়া হয় তা বাড়িয়ে দেওয়া হবে। উনি আস্বাসন দেন যে রাজ্যের মৌলবীদের আয় বৃদ্ধির করানোর জন্য সরকার কাজ করবে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

তবে যখন ফিরহাদ হাকিমকে যখন টিভি 9ভারতবর্ষের তরফে বলা হয় যে উনি কেন নির্বাচনী নিয়ম উলঙ্ঘণ করছেন, তখন তিনি পাল্টি খেয়ে যান। ফিরহাদ হাকিম বলেন যে তিনি নাকি মসজিদে প্রার্থনার জন্য এসেছিলেন।