Press "Enter" to skip to content

জীবনের শেষ নিশ্বাস গুনছে কাশ্মীরি নেতা সায়েদ আলী শাহ গিলান! সারাজীবন করেছে ভারত বিরোধিতা

ের কুখ্যাত ী ও দেশদ্রোহীদের তালিকার শীর্ষে থাকা সায়েদ আলী শাহ গিলানির (Syed Ali Shah Geelani) ভিডিও সামনে এসেছে। ৩৭০ ধারা অপসারণের পর এই প্রথম এই কট্টরপন্থীর ভিডিও সামনে এসেছে। আগের সরকারের আমলে আলী শাহ গিলানি সরকারকে চাপে রেখে বহু সুবিধা ভোগ করতো। কিন্তু মোদী সরকারের দ্বিতীয় বার ক্ষমতায় আসার পর সব ভোগবিলাসিত কেড়ে নেওয়া হয়েছে। উল্টে তাকে কেন্দ্র সরকার আন্টি ডোজ দেওয়ার কাজ শুরু করেছে।

ফলস্বরূপ এখন আলী শাহ গিলানি তার জীবনের শেষদিনগুলি গুনছে। বলা হচ্ছে আলী শাহ গিলানি এখন বিছানা থেকে উঠে দাঁড়ানোর অবস্থাতেও নেই। এক সময় বিচ্ছিন্নতবাদী শক্তির বড়ো নেতা হিসেবে পরিচিত ছিল এই গিলানি। তবে ধারা ৩৭০ অপসারণের পর থেকে খেলা অন্যদিকে ঘুরে গেছে।

আলী শাহ গিলানির এক ভিডিও সামনে এসেছে যেখানে দেখা মিলছে যে তার অবস্থা খুবই দুর্বল। ভিডিওতে গিলানি বলছে, পাক এ সরজামিন। গিলানি বিছানা শয্যায় রয়েছে এবং শেষদিনের মুহূর্ত যেন সামনে চলে এসেছে। এর আগে উমর আব্দুল্লাহর ছবি সামনে এসেছিল যেখানে তাকেও দুর্বল মনে হয়েছিল। উমর আব্দুল্লাহকে নিয়ে সেই সময় দেশের রাজনীতি বেশ চর্চায় উঠেছিল।

https://platform.twitter.com/widgets.js

পৃথিবীর স্বর্গ হিসেবে পরিচয় পাওয়া কাশ্মীরে পাকিস্তানের বিগত কিছু দশকে যে আতঙ্কবাদ ছাড়িয়েছে তার দরুন কাশ্মীর তার পরিচয় হারিয়ে ফেলেছে। তবে ধারা ৩৭০ অপসারণের পর থেকে কাশ্মীরে আতঙ্কবাদী অনুপ্রবেশ ও কট্টরপন্থী গতিবিধি প্রায় বন্ধ হয়েছে। সাথে সাথে কাশ্মীরের বিচ্ছনতাশক্তিকে উস্কানি দেওয়া নেতাদের গ্রেফতার করে গৃহবন্দি করা হয়েছে।