Press "Enter" to skip to content

জেলে আমাকে কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না, কারোর সাথে দেখাও করতে দেওয়া হচ্ছে না! বলল উমর খালিদ

নয়া দিল্লীঃ দিল্লী দাঙ্গা মামলায় গ্রেফতার JNU এর প্রাক্তন ছাত্র উমর খালিদ (Umar Khalid) বৃহস্পতিবার আদালতে পেশ হয়। সেই সময় খালিদ জানায় যে, তাকে সেলের বাইরেই যেতে দেওয়া হচ্ছে না, আর কারোর সাথে কথাও বলতে দেওয়া হচ্ছে না। উমর খালিদ আদালতকে জানায় যে, তাকে জেলে লাগাতার একান্ত কারাবাসে রাখা হচ্ছে। জানিয়ে দিই, আজ খালিদের ১৪ দিনের হেফাজত শেষ হয়েছে। তাকে তিহার জেল থেকে ভার্চুয়াল হিয়ারিংয়ের মাধ্যমে কড়কড়দুমা আদালতে বিচারকের সামনে পেশ করা হয়।

খালিদের আইনজীবীর তরফ থেকে আদালতকে বলা হয় যে, সুপারিটেন্ডেন্টকে সেলে বন্ধ করে রাখার অভিযোগ করার পর খালিদকে মাত্র ১০ মিনিটের জন্য সেলের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। এরপর তাকে আবারও সেলে বন্ধ করে দেওয়া হয়। আইনজীবী আদালতে বলেন, সুরক্ষার অজুহাত দেখিয়ে খালিদকে সেলের বাইরে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না।

উমর খালিদ বলে, আমার কোনও সুরক্ষার দরকার নেই, কিন্তু সুরক্ষার অজুহাত দেখিয়ে আমাকে সবসময় সেলেই বন্দি করে রাখা হচ্ছে। খালিদ আদালতকে এও বলে যে, যেহেতু জেল প্রশাসনের অভিযোগ সে আদালতে করছে, সেহেতু আদালত যেন প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়ে বলে তাকে যেন আর বিরক্ত না করা হয়। কড়কড়দুমা আদালত আগামীকাল এই মামলায় জেলের সুপারিটেনডেন্টকে পেশ হওয়ার হুকুম দিয়েছে।

উমর খালিদের অভিযোগের পর জেলের সুপারিটেনডেন্ট আগামীকাল ভার্চুয়াল হিয়ারিংয়ের মাধ্যমে কড়কড়দুমা আদালতের অ্যাডিশনাল সেশন বিচারক অমিতাভ রাওয়াতের সামনে পেশ হুয়ে নিজের পক্ষ রাখবেন। জানিয়ে দিই, বিচারক অমিতাভ রাওয়াতই দিল্লী দাঙ্গার সব মামলায় শুনানি করছেন। দিল্লী দাঙ্গার সাথে যুক্ত একটি মামলায় গত মাসে দিল্লী পুলিশ JNU এর প্রাক্তন ছাত্র উমর খালিদকে গ্রেফতার করেছিল।