Press "Enter" to skip to content

“জোর করে আমাকে পর্নস্টার বানানোর চেষ্টা হচ্ছে”- স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ বিবির

ভারতে তিন আইনত নিষিদ্ধ হলেও গোঁড়া ব্যক্তিদের মধ্যে এখনও তিন তালাকের প্রচলন বর্তমান এবং তার জেরে অকালে প্রাণ দিতে হচ্ছে অসহায় নারীদের। তিন তালাক প্রসঙ্গে সম্প্রতি মুম্বাইয়ের একটি ঘটনা সংবাদ মাধ্যমের সামনে এসেছে।

মুম্বইয়ের একজন ফিজিওথেরাপিস্ট অভিযোগ করেছেন যে তার স্ী তার যোনিতে জোর করে এমন কিছু জিনিস ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন যার জেরে ওই মহিলা ধারণে ব্যর্থ হয়। শুধু এই নয়, এরপর তাকে পর্ণগ্রাফি ছবিতে জোর করার নামানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। মহিলার আরও অভিযোগ যে তার শাশুড়ি তিন তালাক দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল।

অভিযোগকারিণী মহিলা ২০১৪ সালে বিয়ে করেন। তিনি বলেন, যে এক সময় তার স্বামী মেয়েটির বোনদের ছবি চেয়েছিল। ভুক্তভোগী জানিয়েছেন,গর্ভধারণে অক্ষম থাকায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হলেও আসল কারণ তার স্বামী বিবাহ বিচ্ছেদ চায়।

ওই মহিলা জানিয়েছেন,এক রাতে অভিযুক্ত তাকে ঘুমন্ত অবস্থা থেকে তুলে একজন অচেনা ব্যক্তির সাথে ভিডিও কল করতে জোর করে। তিনি জুন মাসে এই বিষয়টি তার বোনদের জানায়। মহিলা এফআইআর- কপিতে উল্লেখ করেছেন, তার স্বামী তার শরীরে কোনও ী বস্তু ঢুকিয়ে দিয়েছিল এবং তিনি এই বিষয়টি কারোর সঙ্গে শেয়ার করেননি। তবে এই ঘটনার উদাহরণ দিয়ে পরবর্তীকালে তাকে পর্ন তারকা হিসাবে কাজ করতে বাধ্য করার চেষ্টা করা হয়েছিল।

অভিযোগকারিণীর মায়ের অভিযোগ, ভারতবর্ষে তিন তালাক নিষিদ্ধ হলেও মেয়ের শশুরবাড়ি থেকে তিন তালাক দেওয়ার জন্য জোর করা হচ্ছিল। এবং শশুরবাড়ি থেকে ব্যাঙ্কের পাশব‌ই,‌পাসপোর্ট ফেরত দেওয়া হচ্ছে না।